বাংলা সিরিয়াল

বাঁকা মেননকে একাই ধরছে জগদ্ধাত্রী! পর্দা ফাঁস ও করছে একা! স্পেশাল ক্রাইম ব্রাঞ্চ অফিসার হয়েও উৎসবের কোন কাজ নেই ধারাবাহিকে!

বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক জগদ্ধাত্রী। এই ধারাবাহিকে দেখা যায় নায়িকা জগদ্ধাত্রীর দুটি রূপ, তার এক রূপের কথা সবাই জানে, অন্য রূপের কথা কেউ জানে না। জগদ্ধাত্রীকে সবাই বাড়ির শান্ত শিষ্ট মেয়ে হিসেবেই জানে কিন্তু সে যে ডাকাবুকো পুলিশ অফিসার তা কেউ জানে না। তার এই রূপটা সে সবার থেকে আড়াল করে রাখে। একমাত্র তার বন্ধু স্বয়ম্ভূ জানে তার আসল সত্যিটা কী কারণ স্বয়ম্ভূ নিজেও এই পেশায় রয়েছে। স্বয়ম্ভূর একটা ফ্যামিলি ক্রাইসিস ছিল সেই ফ্যামিলি ক্রাইসিসের সলভ করতে জগদ্ধাত্রী একটা মিথ্যে বউ সেজে স্বয়ম্ভূর সাথে মুখার্জি পরিবারে আসে।

কিন্তু এরপর কৌশিকী মুখার্জি আর জগদ্ধাত্রীর বিয়ের ঠিক করে, এই বিয়ের মুহূর্তে যখন স্বয়ম্ভূ সিঁদুর দানের প্রস্তুতি নিচ্ছে তখন মেনন আর বাঁকা সেখানে গিয়ে পৌঁছায় জগদ্ধাত্রীর বোন মেহেন্দির হাসবেন্ড উৎসবকে মারার জন্য বাধ্য হয়ে হাতে বন্দুক তুলে নিয়ে মেননকে গুলি করে জগদ্ধাত্রী এরপর বাঁকা কে সে পুলিশ থানায় নিয়ে গিয়ে তোলে। এরপর সে যখন কেস সল্ভ করতে যাচ্ছে তখন কৌশিকী মুখার্জী র হুমকি ফোন আসে তার কাছে যে, এই অসম্পূর্ণ বিয়ে সম্পূর্ণ না করলে মুখার্জী বাড়ির দরজা স্বয়ম্ভূর জন্য চিরতরে বন্ধ হয়ে যাবে।

তখন স্বয়ম্ভূর জন্য বিয়ে কমপ্লিট করতে ছুটে যায় জগদ্ধাত্রী, কিন্ত স্বয়ম্ভূ নিজে চায় নি এই বিয়ে হোক, ভালোবাসা বিহীন এই বিয়েটা হোক। এরপর দেখা যায় মূলত কৌশিকী মুখার্জির চাপে পড়ে এবং জগদ্ধাত্রীদের কথা শুনে বাধ্য হয়ে স্বয়ম্ভূ জগদ্ধাত্রীর সিঁথিতে সিঁদুর দেয়, একটা অসম্পূর্ণ মিথ্যা বিয়ে সম্পূর্ণ হয়। সম্প্রতি এই ধারাবাহিকের একটি প্রোমো দিয়েছে যেখানে দেখানো হচ্ছে যে বাসে করে পালাচ্ছে বাঁকা তখন তার পিছনে ছুটছে জগদ্ধাত্রী আর জগদ্ধাত্রীর পিছনে স্বয়ম্ভূ।

জগদ্ধাত্রী বাঁকাকে ধরে ফেলে আর তাকে মারতে শুরু করে এই সময় কৌশিকী মুখার্জির ফোন আসে আর সে বলে সে রাঘব বোয়ালের খোঁজে বেরিয়েছে। কিন্তু এই প্রোমো দেখে দর্শকরা জিজ্ঞেস করেন যে জগদ্ধাত্রীর মতো স্পেশাল ক্রাইম ব্রাঞ্চ এর অফিসার হলো স্বয়ম্ভূও কিন্তু তাকে কী করতে রাখা হয়েছে? তার তো আলাদা কোন অ্যাক্টিভিটিই দেখা যায় না! তাই দেখে একজন নেটিজেন আবার হেসে বলেছেন স্বয়ম্ভূ শুধু বউয়ের আঁচল ধরে ঘোরার জন্য আছে!

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।