বাংলা সিরিয়াল

পদ্মপলাশের একঘেয়ে কীর্তন শুনতে শুনতে রুষ্ট হয়েছেন নেটিজেনদের একাংশ, সারেগামাপার মঞ্চেও একচোখামি করা হয় দাবি নেটিজেনদের

বাংলা বিনোদন জগতে যে শুধুমাত্র ধারাবাহিকই রয়েছে তা নয় এছাড়াও রয়েছে আরো বিনোদনমূলক রিয়ালিটি শো। যেগুলি দর্শকদের সপ্তাহের শেষে মনোরঞ্জন করে থাকে। ধারাবাহিক দেখতে দেখতে যখন একঘেয়ে হয়ে ওঠেন দর্শক তখনই এই রিয়েলটি শো গুলি দেখে প্রাণ ফিরে পান তারা। আর জি বাংলার এই সমস্ত জনপ্রিয় রিলেটি শো গুলোর মধ্যে অন্যতম হলো ডান্স বাংলা ডান্স, সারেগামাপা, দাদাগিরি, মিরাক্কেল, দিদি নাম্বার ওয়ান ইত্যাদি। এই শো গুলি দর্শকদের অত্যন্ত পছন্দের তাই তো এদের জনপ্রিয়তাও বিপুল। গানের অনুষ্ঠান নাচের অনুষ্ঠান আরও বিভিন্ন বিনোদনমূলক অনুষ্ঠানে মানুষের মন জয় করে থাকে চ্যানেল কর্তৃপক্ষ।

আর তারই মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় হলো সারেগামাপা। প্রতিটি সিজনে সারেগামাপা মঞ্চে উঠে আসে বিভিন্ন জেলা থেকে বিভিন্ন প্রতিভা। যাদের গানে মুগ্ধ গোটা বাংলার মানুষ। তারা বিভিন্ন ধরনের গান গেয়ে দর্শক এবং বিচারকদের মাতিয়ে রাখে প্রতিটি পর্বে। আর এবারে সেরকমই একজন প্রতিযোগী হলেন লক্ষীকান্তপুরের কীর্তন শিল্পী পদ্মপলাশ। তার কীর্তন গানে ইতিমধ্যেই হাজার হাজার দর্শক এবং বিচারকদের মন জয় করে নিয়েছেন তিনি।

আর একসময় এই শিল্পীরা এতটাই দর্শকদের মন জয় করে নেয় যে দর্শকেরা তাদের গান শোনার জন্যই অপেক্ষা করে থাকেন। কিন্তু এবারে সেটা একেবারেই উল্টো হচ্ছে। পদ্মপলাশের গান শুনে একাংশ দর্শক খুশি হওয়ার বদলে বেশ রুষ্ট হয়ে যায়। কারণ তাদের দাবি একজন গায়ক সব ধরনের গানই গাইবে একটি অনুষ্ঠানে সেটাই তারা আশা করে থাকেন কিন্তু পদ্মপলাশ আসার পর থেকে কীর্তন গান শুনিয়ে যাচ্ছে যা দর্শকের একেবারেই পছন্দ হচ্ছে না।

দর্শকরা একজন গায়কের থেকে বিভিন্ন ধরনের গান শুনতে চাই। আর বিচারকদের থেকেও সেটা আশা করে যে একজন বিচারক চাইবে এক গায়ক সব ধরনের গানই গাইতে পারবেন। কিন্তু পদ্মপলাশের ক্ষেত্রে এই নিয়ম কেন খাটছে না? আর এটিই দর্শকরা রুষ্ঠ হয়েছেন।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।