বাংলা সিরিয়াল

সমাজ অনেককে এগিয়ে গেলেও স্টার জলসার একাধিক ধারাবাহিক এখনো পিছিয়ে রয়েছে, পুরনো পন্থী নিয়ম নির্ভর করে চলছে ধারাবাহিক গুলি

বর্তমানে বেশিরভাগ বাংলা ধারাবাহিক গুলি হয়ে উঠেছে নারী কেন্দ্রিক। নারীদের ক্ষমতা, শক্তি সবকিছুর উপরই নির্ভর করে এই ধারাবাহিক গুলি গড়ে ওঠে। কিন্তু এর মাঝে কোথাও গিয়ে যেন নারীদের দুর্বল প্রমাণ করার চেষ্টা করা হয় সবসময়। এখনো বেশ কিছু ধারাবাহিকের পুরনো ধ্যান-ধারণা পোষণ করে রাখা হয়েছে। যেখানে বিয়ে হল নারীদের মুখ্য বিষয়। নারী মানেই তাকে বিয়ের পিঁড়িতে বসতে হবে। সম্প্রতি স্টার জলসায় শুরু হয়েছে এক ঝাঁক নতুন ধারাবাহিক। তার মধ্যে অন্যতম হলো নবাব নন্দিনী, হরগৌরী পাইস হোটেল, সাহেবের চিঠি, মাধবীলতা ইত্যাদি। আর এই সমস্ত ধারাবাহিক শুরুর কয়েক সপ্তাহের মাথাতেই নায়িকাদের সঙ্গে নায়কদের বিয়ে দেখানো হচ্ছে। যেন বিয়ে ছাড়া মেয়েদের জীবনে আর অন্য কোন লক্ষ্য বা স্বপ্ন নেই।

এদিকে স্টার জলসার ট্যাগলাইন হচ্ছে ‘চলো পাল্টাই’ কিন্তু আদতে কিছুই পাল্টাচ্ছে না। সেই পুরনো পন্থী ধ্যান ধারণায় পোষন করে রাখা হয়েছে। আর সেগুলি ধারাবাহিকে দেখানো হচ্ছে। ধারাবাহিকের শুরুতেই প্রতিটি নায়িকা চরিত্র কেই দেখানো হয় তারা স্বনির্ভর, উচ্চশিক্ষিতা, প্রতিবাদী একজন নারী।

তবে কয়েক দিনের মাথাতেই তাদের নায়কদের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে দেওয়া হচ্ছে। এরপর তারা সংসারে প্রত্যেকের মন জয় করতে ব্যস্ত। কি করে সকলের মন জয় করে নিতে হয় সকলকে ভাল রাখতে হয় সেই দিকে নজরদারি করছে। তার পুরনো জীবনের সবকিছুই সে বিসর্জন দিচ্ছে।

তবে এই ঘটনাগুলি সমাজের কাছে একেবারেই কোনো ভালো বার্তা দিচ্ছে না। বরং সমাজকে অনেকটা পিছিয়ে নিয়ে যাচ্ছে এই ধারাবাহিকগুলি। বর্তমান সময়ে নারীরা অনেক এগিয়ে।তাদের জীবনের মূল উদ্দেশ্য হলো প্রতিষ্ঠিত হওয়া পরিবারের পাশে এসে দাঁড়ানো। এখনকার সময়ের অনেক নারীরা আগে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হয় তারপরে গিয়ে বিয়ের পিঁড়িতে বসে। কিন্তু বিয়ে মানেই এমনটা নয় যে সে তার আগের জীবনের সবকিছু ভুলে গেছেন। কিন্তু ধারাবাহিক গুলিতে একেবারেই পুরনোপন্থী জিনিসপত্র দেখানো হচ্ছে। যে দর্শকদের একেবারে অপছন্দের।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।