বাংলা সিরিয়াল

“প্রোমো দেয় না, বিরক্তিকর গল্প” – টিআরপি লিস্ট সামনে আসতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন মিঠাই ভক্তরা! বেঙ্গল টপারের থেকে এখন প্রথম তিনেও জায়গা না পাওয়াতে লেখিকা থেকে চ্যানেল সবার প্রতি ক্ষুব্ধ দর্শক

বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক গুলির মধ্যে একটি হলো জি বাংলার মিঠাই। ৫৬ বার বঙ্গ সেরা হয়েছে এই ধারাবাহিক। তবে বর্তমানে তার টিআরপি রেটিং অনেক কমে গিয়েছে। সেই জন্য দর্শক মূলত দোষী সাব্যস্ত করছে ধারাবাহিকের গল্প পরিবর্তনকে। কারণ এর আগে এই ধারাবাহিক টিআরপি লিস্টের সর্বদা শীর্ষেই থাকতো। কিন্তু তবে কয়েক সপ্তাহ ধরে টিআরপি লিস্টে প্রথম তিনেও জায়গা পাচ্ছে না মিঠাই। গত সপ্তাহের টিআরপি লিস্ট প্রকাশ্যে আসার পরেও দর্শক সমালোচনা করেছিলেন। আর আজকে ইতিমধ্যেই প্রকাশ্যে চলে এসেছে এই সপ্তাহের টিআরপির তালিকা। তাই সে বিষয়েও বেশ জল ঘোলা হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়াতে।

এই সপ্তাহের টিআরপি লিস্টে যে ইতিমধ্যে চলে এসেছে তা আমাদের সকলেরই জানা। এই সপ্তাহের টিআরপি লিস্টে গত সপ্তাহের থেকেও খারাপ ফলাফল করেছে মিঠাই। ৬.৬ পেয়ে টিআরপি তালিকায় পঞ্চম স্থান অধিকার করেছে এই ধারাবাহিক। ব্যাস তাতেই বেজায় খেপেছেন দর্শক। মিঠাই ভক্তদের দাবি লেখিকা এবং চ্যানেল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে প্রচুর খামতি থেকে যাচ্ছে যার জন্য ধারাবাহিকের ফলাফল খারাপ হচ্ছে। লেখিকা খারাপ গল্প লিখছেন এমনকি চ্যানেল কর্তৃপক্ষ ধারাবাহিকের কোন প্রমোশন করছে না। যার জন্যই নাকি দিন দিন টিআরপি রেটিং কমছে মিঠাইয়ের। এমনটাই দাবি সোশ্যাল মিডিয়ার একাংশের।

প্রসঙ্গত ধারাবাহিকে গল্পের বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। নতুন ভিলেনের পদার্পণ ঘটেছে মোদক পরিবারে। যে কারণে পরিবারের থেকে বেশি দেখানো হচ্ছে বাইরের থেকে আসা সমস্যা গুলিকে। মূলত যে কারণে এই ধারাবাহিকটি বিখ্যাত ছিল তা হল একান্নবর্তী পরিবার, তাদের প্রত্যেকের সাথে প্রত্যেকের সম্পর্কের বাঁধন, এছাড়াও সিড এবং মিঠাইয়ের খুনসুটি তো স্পেশাল। কিন্তু এখন মোটামুটি এই সব কিছুই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এতে দর্শকের ক্ষোভ আরো বেড়েছে।

প্রসঙ্গত মিঠাই ধারাবাহিকের বরাবরই জনপ্রিয়তা ছিল ধারাবাহিকের বাস্তবিকতার জন্য। সাধারণ মানুষের জীবনে যে ধরনের পারিবারিক সমস্যা উপস্থিত হতে পারে সেই ধরনের সমস্যাগুলোকে নিয়েই মূলত ধারাবাহিকের গল্প রচিত হতো। কিন্তু এখন সে সবকিছু বাদ দিয়ে অবাস্তবিকতার গল্পের মোড়কে মোড় ঘুরছে ধারাবাহিকের। কাউন্সিলর প্রমিলা লাহা যিনি মিঠায়ে নতুন ভিলেন তিনি যা সব কাণ্ডকারখানা করছেন তা সবটাই অবাস্তবিক বলে মনে করছেন দর্শক। প্রথম থেকে একটা ধারাবাহিককে বাস্তবিকভাবে দেখে আসার পর হঠাৎ করে এই অবাস্তবিক মোড় একেবারেই মেনে নিতে পারছেন না দর্শক। আর যার ফলেই ধারাবাহিকের টিআরপিও কমছে। তাই মিঠাই ভক্তদের একান্ত অনুরোধ ধারাবাহিকের লেখিকা শাশ্বতী ঘোষ এর কাছে যে তিনি যেন যত তাড়াতাড়ি সম্ভব মিঠাইকে আবার আগের পর্যায়ে ফিরিয়ে নিয়ে যান।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।