বাংলা সিরিয়াল

শাশুড়ি যখন ছেলেকে বাদ দিয়ে বৌমার পাশে দাঁড়ায় তখন সে মা হয়ে যায়!-লাবণ্যর প্রশংসায় পঞ্চমুখ নেটিজেনরা!

স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক অনুরাগের ছোঁয়া। এই ধারাবাহিকে দেখানো হচ্ছে মিশকা ক্রমাগত সূর্যকে ভুল বোঝাচ্ছে। দীপার সম্পর্কে সূর্যর মন ক্রমাগত বিষিয়ে দিচ্ছে মিশকা, সূর্যকে সে বুঝিয়েছে সে কখনো বাবা হতে পারবেনা তাই দীপার গর্ভে সন্তান তার নয় বরং কবীরের। অন্যদিকে কবীরের সাথে দীপার ভাই বোনের সম্পর্ক। নিজের গর্ভজাত সন্তানকে অস্বীকার করলে দীপা কোনরকম পরীক্ষায় রাজি না হয়ে সূর্যর গালে থাপ্পড় মেরে শ্বশুরবাড়ি থেকে বেরিয়ে আসে।

এই পুরো বিষয়ে দীপার পাশে দাঁড়ায় তার শাশুড়ি, সূর্যর মা। সূর্যকে সে জানায় সে কাগজের টুকরোকে নয়, সে মানুষকে বিশ্বাস করে সে জানে দীপা চরিত্রহীনা নয়। এমনকি নিজের ছেলে দীপার চরিত্র নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বলে নিজের ছেলেকেও ছেলে ভাবতে তার খারাপ লাগছে বলে জানায় লাবণ্য সেনগুপ্ত। নিজের ছেলের বিরুদ্ধে গিয়ে বৌমার পাশে দাঁড়ায় সে।

বৌমাকে সে বলে যে তুমি এখন এই বাড়ি থেকে যাও যেদিন তুমি তোমার যোগ্য সম্মান পাবে সেদিন তুমি এখানে ফিরে এসো। বৌমার কাছে গিয়ে নিজে সে বৌমাকে সাধ খাইয়ে আসে। তার এই সব গুণ দেখে মুগ্ধ হয়ে গিয়েছেন নেটিজেনরা তাদের বক্তব্য এরকম শাশুড়ি অনেক ভাগ্য করলে পাওয়া যায়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় একজন নেটিজেন লিখেছেন যে, লাবণ্যর মত শাশুড়ি প্রত্যেকেই চায়। কেউ আবার বলছেন যে, সত্যি যে চরিত্রটাকে একদিন খল মনে হতো সেই চরিত্রটাকেই আজ দেখলে গর্ব বোধ হয়। কেউ আবার বলছেন যে, লাবণ্যকে দেখে দীপার শাশুড়ি কম মা বেশি মনে হয়।

একজন নেটিজেন যেমন লিখেছেন,“ যখন থেকে শাশুড়ি বৌমার দোষকে নয় , ছেলের দোষ কে বড় করে দেখে ছেলেকে শাসন করে। তখন থেকে শাশুড়ি আর শাশুড়ি থাকে না। শাশুড়ি থেকে মা হয়ে যায় ”

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।