বাংলা সিরিয়াল

‘পিলু’ ধারাবাহিক থেকে মন উঠে যাচ্ছে দর্শকদের, এবার ধীরে ধীরে জমে উঠে স্টার জলসার ‘নবাব নন্দিনী’

সম্প্রতি এক মাস হল স্টার জলসার পর্দায় শুরু হয়েছে নতুন ধারাবাহিক নবাব নন্দিনী। ধারাবাহিকের দুই কেন্দ্রীয় চরিত্রই আমাদের সকলের কাছেই বেশ পরিচিত। এর আগে দুজনেই স্টার জলসার পর্দায় অভিনয় করেছেন। এই ধারাবাহিক শুরু থেকেই জি বাংলার পিলুর সাথে টক্কর দিচ্ছে। বর্তমানে পিলু ধারাবাহিকের গল্প এতটাই বাজে হচ্ছে এবং পিলু চরিত্রটির কোনো গুরুত্বই নেই যার ফলে ধারাবাহিক দেখার প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে। আর অন্যদিকে ধীরে ধীরে নবাব নন্দিনীর দর্শক সংখ্যা বাড়ছে।

ধারাবাহিকের শুরুতেই দেখানো হয় নবাব এবং নন্দিনীর খুব তাড়াতাড়ি বিয়ে হয়ে যায়। যা দেখে দর্শক একটু প্রথমে অবাক হয়ে গিয়েছিলেন। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে। বর্তমানে নবাবের বাড়িতে নন্দিনী বউ হয়ে এসেছে এবং নবাবের বৌদি কমলিকার সঙ্গে টক্কর দিতে শুরু করে দিয়েছে। কারণ নবাবের বাড়ির মাথা হল তার বৌদি কমলিকা, তার কথাতেই সমস্ত কাজ হয়ে বাড়িতে। এবার নন্দিনী নিজের বুদ্ধির মাধ্যমে বাজিমাত করবে তার জা কে।

বিদেশি ফুটবল ক্লাবের থেকে নবাবের জন্য চিঠি আসার পর নন্দিনী সেটা সযত্নে গুছিয়ে রেখে দেয়। কিন্তু কমলিকার নির্দেশে তার বাড়ির কাজের লোক চিঠি সরিয়ে অন্যত্র রাখে আর সেই চিঠির না পাওয়ার পর থেকেই নবাব পাগল পাগল ব্যবহার করতে থাকে। সমস্ত দোষ গিয়ে পড়ে নন্দিনী এর উপর। আর তখন মনে মনে বেশ খুশি হয় কমলিকা। আগামী পর্বে দেখা যাবে নন্দিনী ঠিক নিজের বুদ্ধি দিয়ে তার কমলিকা কে জব্দ করবে।

নন্দিনী এবং নবাব পুলিশ স্টেশনে গিয়ে চিঠি হারিয়ে যাওয়া অভিযোগ করে প্রথমে পুলিশ অফিসাররা কিছুতেই এই অভিযোগ নিতে চাইছিল না কিন্তু নন্দিনী এতটাই কোমল সুরে সকলকে অনুরোধ করে তারা নন্দিনীর ব্যবহারে মুগ্ধ হয়ে অবশেষে অভিযোগ নেয় এবং এর পরে ফুটবল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে নবাবকে ডুবলিকেট চিঠি দেওয়া হয়। আর সবটাই সম্ভব হয় নন্দিনীর জন্য।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।