বাংলা সিরিয়াল

“ওকে ডাকিনী রূপে দেখতে চাই” – সৃজলাকে দুর্গার রূপে দেখতে চেয়েছিলেন তাঁর ভক্তরা, আর তাতেই মিঠাই ভক্তরা করলেন খিল্লি! এই বিষয়ে ঘিরে আবারও দুই অভিনেত্রীর ভক্তদের মধ্যে শুরু হলো যুদ্ধ

আর হাতেগোনা কয়েকটা দিন। তারপরেই শুরু হবে মহালয়া। ইতিমধ্যেই বাংলার প্রত্যেকটি ঘরে ঘরে শুরু হয়ে গিয়েছে পুজোর তোরজোর। জামা কাপড়, খাওয়া দাওয়া থেকে প্যান্ডেল হপিং সব ক্ষেত্রেই প্ল্যান মাফিক চলবে পুজো। মহালয়ার পুন্য তিথিতে বীরেন্দ্রকৃষ্ণের দেবী বন্দনা বাংলার মানুষের এক নস্টালজিয়া। যদিও নস্টালজিয়া বলাটা ভুল হবে কারণ বাঙ্গালী প্রত্যেক মহালয়ার ভোরে বীরেন্দ্র কৃষ্ণের কন্ঠে দেবীর আহবান শুনে মনে করেন যে এবার দেবীর আগমন ঘটলো।

কিন্তু সেই দূরদর্শনের সময় থেকেই চলে আসছে বিনোদন মাধ্যমের একটি প্রথা। প্রত্যেক মহালয়াতে ভোরবেলা শুরু হয়ে যায় প্রত্যেক চ্যানেলের বিশেষ শো মহিষাসুরমর্দিনী। প্রত্যেক বছরের মতো এ বছরেও ইতিমধ্যেই আমরা জেনে গিয়েছি কোন কোন চ্যানেলে কোন কোন অভিনেত্রী দেবী দশভূজা চরিত্রে অভিনয় করছেন। কিন্তু অভিনেত্রীর ভক্তকূলের মধ্যে একটা চাহিদা তো থেকেই যায়।

স্টার জলসা, জি বাংলা এবং কালার্স বাংলা এই তিন চ্যানেলের মহিষাসুরমার্দিনী শোয়ের সিংহবাহিনী দশভূজার চরিত্রের যে তিনজন অভিনেত্রী থাকছেন তাঁদের নাম ইতিমধ্যেই ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। এছাড়াও এই বিশেষ শোতে শুধু দেবী দুর্গার গাঁথা শোনানো হয় না। দেবীর ন’টি রূপের কাহিনী তুলে ধরা হয়। তাই প্রত্যেকটি চ্যানেলে দেবীর সেই সমস্ত চরিত্রে কারা অবতরণ করবেন সে বিষয়েও ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। কিন্তু বাংলা টেলিভিশন জগতে দুই জনপ্রিয় অভিনেত্রী হলেন সৌমিতৃষা কুন্ডু এবং সৃজলা গুহ। এই দুই অভিনেত্রীর ভক্তগোষ্ঠীর মধ্যে সবসময়ই একটা ঠান্ডা লড়াই ধরনের চলতে থাকে। এবার এদের এই লড়াই এক নতুন রূপ নিল।

আসলে সৃজলা ভক্তদের দাবি ছিল যে অভিনেত্রীকে তারা দেখতে চান দেবী দুর্গা রূপে। কিন্তু দেবী দুর্গার চরিত্র তো অনেক দূরের কথা অভিনেত্রী কে কোন সুযোগই দেওয়া হলো না। এতে বেশ খেপে গিয়েছিল ভক্তকূল। তারা বারবার দাবী জানাচ্ছিল যে কেন সৃজনাকে কোন সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না। বিশেষ শো’গুলির সব রকমের কাস্টিং ঘোষণা হওয়ার পর সৃজলার ভক্তকূল আরো বেশি করে ক্ষেপে গিয়েছিল। যদিও চ্যানেল কর্তৃপক্ষ দর্শকের সেসব দাবিতে মাথা ঘামায়নি। তবে এই সমস্ত দাবি দেখে মিঠাইয়ের ভক্তকুল শুরু করল সৃজলার ভক্ত কুলকে খিল্লি করা।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়াতে চোখ রাখলেই দেখতে পাওয়া যাবে তাদের এই লড়াই। যদিও দুই অভিনেত্রীর ভক্ত ফুলের মধ্যে এ লড়াই আজ প্রথম নয়। এই লড়াই বহুদিনের। আর এই ধরনের নতুন টপিক সেই লড়াই এর আগুনে ঘৃতাহুতি মাত্র। সৃজলার ভক্তগুলোর এই দাবিতে মিঠাই ভক্তরা খিল্লি করে বলতে থাকে, “সৃজলাকে ডাকিনী রূপে দেখতে চাই”, “আমাদের দাবি মানতে হবে মানতে হবে”, “মানছি না মানবো না, ডাকিনী রূপে দেখতে চাই সুজিকে”। এই ধরনের আরো নানান মন্তব্য করে গেছেন মিঠাই ভক্তরা। আর এইসব খিল্লি দেখে সৃজলা ভক্তদের রাগ আরো দ্বিগুণ হয়েছে।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।