বাংলা সিরিয়াল

নায়িকা মানেই স্লিম তবু গোলু মোলু হয়ে ৫০ পেরিয়েও পর্দা কাঁপাচ্ছে সুপারস্টার “লক্ষ্মী কাকিমা”! কোন আদর্শে বাঁচেন অপরাজিতা?

প্রাচীন কাল থেকেই আমাদের একটা ধারণা আছে যে অভিনেত্রী হতে গেলেই সুন্দর লম্বা ফর্সা হতে হবে। অপরদিকে অভিনেতা হতে গেলে সুপুরুষ এবং সুডৌল মাংসপেশী থাকতে হবে। কিন্তু দিন পরিবর্তনের সাথে সাথে আমাদের এই ধারণাগুলো পরিবর্তন হচ্ছে। প্রচলিত সেই ধারণাগুলি যে ভুল সেগুলো আস্তে আস্তে প্রমাণিত হয়ে যাচ্ছে। প্রচলিত ধারণাগুলি ভাঙার পিছনে যে অভিনেত্রীদের নাম রয়েছে তারা হলেন বলিউডের বিদ্যা বালান এবং টলিউডের অপরাজিতা আঢ্য।

অপরাজিতা আঢ্য স্বাস্থ্যবতী আবার বয়স হয়েছে ৫০ এর উপর। তা সত্বেও তিনি টলিউডে পুরোদমে অভিনয় চালিয়ে যাচ্ছেন। ছোট পর্দা থেকে বড় পর্দা সব ক্ষেত্রেই তার অগাধ বিচরণ। এই মুহূর্তে নায়িকা কে দেখা যাচ্ছে প্রথম বাংলা চ্যানেলের ধারাবাহিক লক্ষ্মী কাকীমা সুপারস্টারের সিরিয়ালে। এই সিরিয়ালটিও বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। টিআরপি তালিকাতেও প্রথমের দিকেই রয়েছে এই সিরিয়ালটির স্থান।

তাই অনেকেরই জানার ইচ্ছা যে অপরাজিতা কোন আদর্শ নিয়ে জীবন পথে চলেন? এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী নিজেই স্বীকার করেছেন যে তিনি যদি বুঝতে পারেন যে তিনি নিজের বেস্ট টা দিতে পারছেন না কারণ তিনি মোটা। তবে তিনি রোগা হয়ে যাবেন কারণ রোগা হওয়ার ক্ষমতাও তিনি রাখেন। লকডাউনের সময় এই অভিনেত্রী ১০ কেজি ওজন কমিয়ে ফেলেছিলেন।

কিন্তু তিনি রোগা হবেন না কারণ তিনি যদি রোগা হন তবে দর্শকেরও আপত্তি। সকল সময়ই মানুষ তাকে সোশ্যাল মিডিয়াতে জানান যে তিনি যেন এমনই গোলুমোলু থাকেন। এর পাশাপাশি অভিনেত্রী নিজের জীবনের আদর্শের কথা বলতে গিয়ে তিনি বললেন যে অন্যের আদর্শে, পছন্দে বাঁচার থেকে তার কাছে মৃত্যু হওয়া শ্রেয়। তিনি মনে করেন মোটা বা রোগা, কোনো কিছুই থাকবে না, মানুষের মনে রয়ে যাবে তার অভিনয়টাই। অভিনেত্রীর কথায় “আমি নিজের পছন্দে বাঁচি তুমি আমাকে নিলে ভালো না নিলে আরো ভালো”।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।