বাংলা সিরিয়াল

রোহিত সেন, গুনগুনকে মেরে ফেলার পর এবার লালনকে সমুদ্রে ডুবিয়ে দিলেন লীনা গাঙ্গুলি! তবে কি এবার শেষ হতে চলেছে ধূলোকণা ? আশঙ্কা দর্শকদের

বর্তমান সময়ে ধারাবাহিক টিকে থাকার মূল ভিত্তি হলো জনপ্রিয়তা। যে ধারাবাহিকের জনপ্রিয়তা যত বেশি সেই ধারাবাহিক টিকে থাকার সম্ভাবনাও তত বেশি। কিন্তু যে ধারাবাহিকের জনপ্রিয়তা নেই সেই ধারাবাহিক কিছুদিনের মধ্যেই বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। টিআরপি তালিকায় ভালো ফল লাভ করার জন্য বিভিন্ন ধারাবাহিকে আনা হয় নতুন মোড়। প্রতিটি ধারাবাহিকেই এখন দুর্দান্ত পর্ব চলছে। বাংলা ধারাবাহিকগুলির মধ্যে এই মুহূর্তে সবথেকে জনপ্রিয় ধারাবাহিক হলো মিঠাই। তবে মিঠাইয়ের পাশাপাশি ধূলিকণা ধারাবাহিকও বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। আর এই জন্যই এই ধারাবাহিকে মাঝেমধ্যেই নতুন ট্যুইস্টের সৃষ্টি করা হচ্ছে।

যারা এই ধারাবাহিকের নিয়মিত দর্শক তারা সকলেই জানেন যে অনেক কষ্ট করে অবশেষে বিয়ে হয়েছে লালন এবং ফুলছড়ির। লালনের সঙ্গে ফুলঝুরির বিয়ে হয়েছে সেটা আবার দেখে হিংসা করেন চড়ুইয়ের মা। কারণ চড়ুই লালন কে ভালবাসে।

লালন ফুলঝুরির প্রেম যাতে টিকতে না পারে সেই জন্য একটা বড় ধরনের ছক কষে ফেলল চড়ুইয়ের মা। সম্প্রতি হানিমুনে গিয়েছিল এই দুটিজুটি। সেখানে গিয়ে সমুদ্রে দুজন একসঙ্গে একান্তে সময় কাটানোর স্বপ্ন দেখেছিল।

এর আগে দেখেছিলাম যে সমুদ্রের জলে হয়তো ডুবে যাবে লালন। তবে এবার সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়েছে আর একটি ভিডিও যেখানে দেখা যাচ্ছে যে ফুলঝুরিকে পুলিশ অফিসার বলবে যে সমুদ্র থেকে একটি মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে কিন্তু সেখানে প্রচুর পাথর থাকায় মৃতদেহের মুখটি ক্ষতবিক্ষত হয়ে গেছে। চেনা যাচ্ছে না। তবে লালনের সঙ্গে সেই মৃত ব্যক্তির জামা কাপড়ের মিল পাওয়া যায়। এই কথা শুনে ফুলঝুরি হাউ হাউ করে কাঁদতে থাকে। পুলিশ অফিসার বলেন যে মৃতদেহ শনাক্ত করার জন্য একজনকে যেতে হবে কিন্তু ফুলঝুরি খুবই ভেঙে পড়ে।

তবে এইসব দেখে খুবই কষ্ট পেয়েছে দর্শকরা। রিনা গাঙ্গুলীর লেখা এর আগে খড়কুটো ধারাবাহিকের শেষ পর্বে দেখা গেছে গুনগুনকে মারা যেতে। এখন লালন কে মারা যেতে দেখে দর্শকরা ভাবছেন যে তবে কি এবার ধূলিকণা ধারাবাহিক ও শেষ হতে চলেছে?

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।