বাংলা সিরিয়াল

বাড়িতে এক বাইরে এক! বাড়ির কেউ জানেইনা জগদ্ধাত্রীর ডাকাবুকো রূপের কথা? সে কি বাড়িতেও নিরীহ থাকার অভিনয় করে?

জি বাংলার নতুন ধারাবাহিক জগদ্ধাত্রী প্রমোতে দেখানো হচ্ছে যে, জগদ্ধাত্রীর বাড়িতে ছেলে এসেছে জগদ্ধাত্রীকে দেখবার জন্য। জগদ্ধাত্রীর বাড়ির লোক জগদ্ধাত্রীর গুণের বিভিন্ন রকম কথা বলে যাচ্ছেন। জগদ্ধাত্রীর বাবা বলছে, আমার মেয়ে গৃহকর্মে নিপুণা। জগদ্ধাত্রী সৎ মা বলছে, সাত চড়ে রা কাটে না মেয়ে। ছেলের বাড়ি থেকে যখন জিজ্ঞেস করা হচ্ছে, মেয়ের কি কোন খুঁত আছে?

তখন জগদ্ধাত্রী ঠাকুমা বলে আমার নাতনি একেবারে জগদ্ধাত্রী। এরপর জানা যায় যে যারা জগদ্ধাত্রীকে দেখতে এসেছে তারা আসলে বাচ্চা মানুষ করবার জন্য আয়ার মত একটা মেয়ে চাইছে। এই শুনে জগদ্ধাত্রীর ঠাকুমা সেই পাত্রপক্ষকে বাড়ি থেকে বার করে দেয়। তখন জগদ্ধাত্রীর সৎ মা বলে, থাকুক ওই মেয়ে আইবুড়ো হয়ে বাড়িতে পড়ে। আমিও দেখবো ওই মেয়েকে বিয়ে করতে কোন রাজপুত্র আসে।

কিন্তু এই ধারাবাহিকের মধ্যে সবথেকে টুইস্ট হলো এই জায়গায় যে, যখন এই সমস্ত কথাগুলো জগদ্ধাত্রীর বাবা ও সৎ মা পাত্রপক্ষকে বলছে তখন দেখা যাচ্ছে অন্য দিকে জগদ্ধাত্রী স্পেশাল ক্রাইম ব্রাঞ্চ অফিসার হিসেবে মারপিট করছে দুষ্কৃতীদের সাথে! এই ধারাবাহিকের প্রোমো থেকেই দেখানো হয়েছে যে,জগদ্ধাত্রীর দুটো রূপ তার মধ্যে একটি রূপের কথা তার বাড়ির লোক কেউ জানে না। সবাই জানে সে শান্তশিষ্ট একটি মেয়ে কিন্তু তার যে একটা উগ্রচন্ডা রূপ আছে সে যে স্পেশাল ক্রাইম ব্রাঞ্চ অফিসার তা কেউ জানে না!

এখন ধারাবাহিকের এই প্রমো দেখে দর্শকরা সবাই প্রশ্ন করছেন যে এটা কেমন করে হয় বাড়ির মেয়ে আসলে কি তা বাড়ির লোকই জানে না? সে বাইরে কি করে তাও কেউ জানে না? সব থেকে বড় কথা যে একজন ডাকা বুকো পুলিশ অফিসার সে বাড়িতে সব সময় নিরীহ হয়ে থাকে কেন সে কি তাহলে সবার কাছে অভিনয় করে?

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।