বাংলা সিরিয়াল

“বিয়ের পরেই চিঠি কে আর পিওনের চাকরি করতে দেখা গেলনা, চশমাও পড়তে দেখা গেলনা” – “সাহেবের চিঠি” ধারাবাহিকের বিয়ের পরেই চিঠির নতুন রূপে ব্যঙ্গ করছেন নেটিজেনরা

বিনোদন জগতের অন্যতম অংশ ধারাবাহিক। ধারাবাহিককে প্রত্যেকটা সিন দেখার সৌন্দর্যের জন্য নানান রকম পরিবর্তন করা হয়। তবে কখনো কখনো আবার সেই সব সিনকে এতটাই পরিবর্তন করা হয় যা দর্শকের চোখে পড়ে যায়। খুব সাধারন সাধারণ ছোট ছোট বিষয় মানুষ অতি সহজেই ধরে ফেলেন। আর সেইসব পরিবর্তন নিয়ে রীতিমতো খিল্লি হয় নেট পাড়ায়।

এরকম বেশ কিছু ঘটনা ঘটে থাকে বিভিন্ন ধারাবাহিকের সাথে। যেমন স্টার জলসার অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক হলো “সাহেবের চিঠি”। এই ধারাবাহিকের মুখ্য চরিত্র হলো সাহেব এবং চিঠি। এখানে সাহেবের ভূমিকাতে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে টেলিভিশনের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা প্রতীক সেনকে। যাঁকে “মোহর” ধারাবাহিকে শেষবারের মতো দেখা গিয়েছিল। আবার চিঠির ভূমিকা দেখতে পাওয়া যাচ্ছে “সাঁঝের বাতি” ধারাবাহিক খ্যাত অভিনেত্রী দেবচন্দ্রিমা সিংহ রায় কে। বলাই বাহুল্য ধারাবাহিকের প্রতীক এবং দেবচন্দ্রিমার জুটি বেশ পছন্দ করেছেন দর্শক।

ধারাবাহিক শুরু হতেই দেখানো হয়েছিল দুজনের পৃথিবী সম্পূর্ণ আলাদা। চিঠি একটি সাধারন মধ্যবিত্ত বাড়ির মেয়ে। যে পিওনের চাকরি করে। অর্থাৎ বাড়ি বাড়ি গিয়ে চিঠি বিলি করে। অন্যদিকে সাহেব মস্ত বড় একজন সিঙ্গার। তবে এই সেলিব্রিটির জীবনে এক মস্ত বড় দুর্ঘটনার পর পা বাদ যায়। আর তাতেই সে নিজেকে নিজের জগৎ থেকে সরিয়ে নেয়। অন্ধকার ঘরে সব সময় নিজেকে আটকে রাখে। তারপরেই তাকে সেখান থেকে বের করে নিয়ে আসে চিঠি। বর্তমানে তাদের মধ্যে বৈবাহিক সম্পর্ক। কিন্তু সিরিয়াল শুরু হওয়ার সময় চিঠির যে লুক দেখানো হয়েছিল সেই লুক একদম বদলে গিয়েছে বিয়ের পরে। আর এটা নিয়েই শুরু হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় খিল্লি।

চিঠি যখন সাধারণ বাড়ির একটি মেয়ে ছিল কিংবা তার বিয়ের আগে যখন সে চিঠি বিলি করার কাজ করতো তখন তার লুক ছিল একেবারে অন্য। সে সালোয়ার কামিজ পড়তো, চুলে বেনুনি আর চোখে থাকতো মোটা ফ্রেমের চশমা। কিন্তু হঠাৎ করে বিয়ের পরে সবকিছু বদলে গেল। এখন সে আর চোখে চশমাও পরেনা এমন কিছু লেবেনানিও বাধেনা। আবার ক্যামেরার সামনে স্টেজে উঠে দাঁড়িয়ে প্রফেশনাল সিঙ্গারদের মতো গান পর্যন্ত গায়। এসব দেখেই একজন নেটিজেন লিখেছেন, “বিয়ের পরেই চিঠি কে আর পিওনের চাকরি করতে দেখা গেলনা, চশমাও পড়তে দেখা গেলনা”। আরেকজন লেখেন, “ডাকপিয়ন থেকে শিল্পী, আর কত কি দেখব”।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।