বাংলা সিরিয়াল

হিন্দু ধর্মকে অপমান করে কাঠগড়ায় টলিউড। হিন্দু দেবীর গায়ে স্পোর্টস ব্রা পরিয়ে মারাত্মক ভুল করেছেন পরিচালক , সরব দর্শকমহল।

হিন্দু বা মুসলিম যে কোন ধর্মকে নিয়ে ছেলেখেলা করলে তার পরিণাম যে কতটা মারাত্মক হতে পারে তা আগেই দেখেছে বলিউড। এবার শুধু বলিউড নয় হিন্দু দেবীকে নিয়ে নোংরামি করার অপবাদে কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হলো টলিউড পরিচালকদেরও। ধর্মের অপমান কিছুতেই মেনে নেবে না দর্শকেরা। এটা বুঝেই কাজ করা উচিত পরিচালকদের দাবী নেটিজেন দের।

সম্প্রতি জি বাংলায় পরিচালিত শিশু ভোলানাথ নামক সিরিয়ালটিতে এক যোগিনীকে দেখানো হয়েছে। তার সাজ পোশাক এবং এক্সপ্রেশন দেখে ছিঃ ছিঃ করছে দর্শক মহল। কারণ সেই যোগিন এর পরনে রয়েছে একটি কালো রঙের স্পোর্টস ব্রা। মা কালীর উপাসিকা এক যোগীনির এহেনও পোশাক পরিচ্ছদে দেখে রীতিমত চোখ কপালে উঠেছে দর্শকদের। এহেন ছেলে খেলা তাও আবার হিন্দু দেব-দেবীদের নিয়ে কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না বলে সরব হয়েছেন তারা। আসলে শিশু ভোলানা আজ একটি হিন্দি ধারাবাহিক ছিল যা বর্তমানে ডাবিং করে “শিশু ভোলানাথ” নামে সম্প্রচারিত হচ্ছে জি বাংলা চ্যানেল এর মাধ্যমে। কিন্তু যোগীনের এইরকম উগ্র সাজ অভদ্র পোশাক-আশাক ও অত্যন্ত নোংরা এক্সপ্রেশন দেখে জি বাংলা টেলিভিশনের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন দর্শকরা।

অপরদিকে জি বাংলা থেকে প্রচারিত আর একটি সিরিয়াল “গৌরী এলো”তে দেখানো হচ্ছে কিছু কুসংস্কার যা জড়িয়ে রয়েছে হিন্দুদের দেবীর সঙ্গে। দেবীর মাহাত্ম্য প্রচার করতে গিয়ে এবং ধারাবাহিকের নায়িকা যে আসলেই দেবীর অংশ তা বোঝানোর জন্য কিছু উদ্ভট কুসংস্কার ও উদ্ভট ক্রিয়া-কলাপ দেখানো হচ্ছে যা আসলে হিন্দু ধর্মের জন্য খুবই অপমানজনক।

“গৌরী এলো” ধারাবাহিকের নায়িকাকে দেখা যাচ্ছে একজনের মাথায় ফুটন্ত গরম জল ঢেলে দিতে যা নাকি আসলে দেবীর কৃপা। আবার কোথাও দেখা যাচ্ছে নায়িকার হাত থেকে গুন্ডাদের বাঁচাতে ধারাবাহিকের নায়ক নায়িকার পায়ের কাছে শুয়ে পড়ছেন এমনভাবে যেন বোঝাতে চাইছেন তিনি মা কালীর পায়ের নিচে শিব ঠাকুর! এসব কুসংস্কার দেখিয়ে ধারাবাহিকের টিআরপি বাড়লেও এগুলো রীতিমতো হাস্যকর ও বিরক্তি কর বলে জানিয়েছেন দর্শকেরা। একজন তো আবার এই রকম একটি ভিডিওর নিচে কমেন্ট বক্সে লিখেছেন “ধিক্কার জি বাংলা” , আবার আরেকজন লিখেছেন, “আর কত অপমান করবে হিন্দু ধর্মকে?”

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।