বাংলা সিরিয়াল

‘উচ্ছে বাবুর সাথে রাতুলের বিয়ে দেখিয়ে মিঠাইতে প্রশ্রয় দেওয়া হচ্ছে সমকামী বিয়েকে’ দাবি তুলে মিঠাই বয়কটের আর্জি নেটিজেনদের এক অংশের! ‘সমকামী বিয়ে বৈধ, পোস্টটি নিম্ন মানসিকতার প্রকাশ’ মিঠাইয়ের হয়ে সাফাই দিলেন মিঠাই ভক্ত!

জি বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক মিঠাই। একবার বা দুবার নয় প্রায় ৫৬ বার বঙ্গ সেরা হয়েছে এই ধারাবাহিক। দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে এই ধারাবাহিক প্রমাণ করে গেছে নিজের গ্রহণযোগ্যতা। তাই স্বাভাবিকভাবে এই ধারাবাহিকের যেমন অসংখ্য গুণমুগ্ধ দর্শক আছেন, তেমনই প্রচুর মানুষ আছেন যারা এই ধারাবাহিক টিকে পছন্দ করেন না। কারণ হয়তো এই ধারাবাহিকের জন্যই তাদের পছন্দের প্রিয় ধারাবাহিকটি বঙ্গ সেরা হতে পারেনি তাই অনেকেই এই ধারাবাহিককে মনে মনে অপছন্দ করেন। তাই এই ধারাবাহিকের মধ্যে কিছু একটা জিনিস পেলে তারা সেটিকে নিয়ে ট্রল করতে শুরু করেন।

সাম্প্রতিককালে মিঠাইয়ে একটি নতুন টপিক এসেছে যা নিয়ে সবাই ট্রোল করছেন। মিঠাই তে একটি এপিসোডে দেখানো হয় যে রাতুল সিদ্ধার্থের কপালে সিঁদুর পরিয়ে দিচ্ছে। এরপর মিঠাই ফ্যানদের মধ্যে কেউ একজন মজা করে লেখে, যা! বিয়ে হয়ে গেলো নাকি?- স্বাভাবিক ভাবেই বোঝা যায় যে এটি একটি ফান পোস্ট। কিন্তু এই পোস্টটি নিয়েই এইবার রীতিমতো trolling শুরু হয়।

কিছু মানুষ মিঠাই নিয়ে রীতিমতো trolling করতে শুরু করেন এবং মিঠাইকে সমকামী সিরিয়াল বলতে শুরু করেন। একজন নেটিজেন যেমন সিদ্ধার্থ আর রাতুলের সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ার শেয়ার করে লিখেছেন,
“Boycott ন্যাকাই
বয়কট মিঠাই
বয়কট সীড
বয়কট বাংলার সমকামী সিরিয়াল
যদিও গল্পটা জলসার ৪-৫ টা ধারাবাহিককে কপি করে একসাথে জগাখিচুরি বানিয়ে কোন এক মিষ্টিওয়ালীর কাহিনী নিয়ে শুরু হয়।
কিন্তু দিনশেষে ঐ মিষ্টিওয়ালীর স্বামী কিনা অন্য ছেলের সাথে বিয়ে করে নিচ্ছে।একটা ছেলে হয়ে আরেকটা ছেলের সাথে?
কিভাবে সম্ভব এইসব নোংরামি?
তবে হ্যা জি বাংলা আর মিষ্টিওয়ালী ন্যাকাই বলেই আজ সম্ভব হয়েছে সমকামী বিয়ে।
সমাজে নতুন ভালো দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করতে এসে এখন সমাজেরই গলার কাটা হয়ে দাঁড়িয়েছে এক মিষ্টিওয়ালীর ন্যাকাই মার্কা গল্প।
যুব সমাজকে ধ্বংশের মুখে নিয়ে যাচ্ছে এইসব সমকামী ধারাবাহিক।সৃষ্টি করছে সমাজের নৈতিক অবক্ষয়।

তাই আসুন,আমরা সুশীল সমাজের মানুষ এইসব নোংরামি দেখা বন্ধ করে দেই।
তবে “নারী ভোক্তা অধিকার দপ্তর’ কে জানাব,যাতে মিষ্টিওয়ালী ন্যাকাই এর একটা বাচ্চা হবার ব্যবস্থা করে দেয় এবং তাকে যেন যথাযথ সুযোগ সুবিধা দেওয়া হয়।
তাই বয়কট করার সাথে সাথে সবাই আওয়াজ তুলুন ঐ মিষ্টিওয়ালী ন্যাকাই এর জন্য।
বয়কট করুন আজই”

এই পোস্টের তুমুল বিরোধিতা করে মিঠাই ফ্যান গ্রুপ থেকে বলা হয়েছে, একটা ফান পোষ্ট নিয়ে যারা এই রকম মন্তব্য রাখে বোঝাই যায় তারা কি রকম মানসিকতার শিকার। মিঠাই ভক্ত একজন এই মানসিকতার মানুষদের তুলোধনা করে লিখেছেন,“ব্যাস শুরু হয়ে গেলো। কালকের একটা পিক নিয়ে বাড়াবাড়ির ফল । সবকিছুর একটা লিমিট থাকে ।যদিও আমাদের ও আগে Alert হওয়া উচিত ছিলো। আমরা ও প্রথমে মজা হিসেবে নিয়েছিলাম। কিন্তু পরে সেরা বিরাট আকার ধারণ করে । আর সেটারই সুযোগ নিলো কিছু মিঠাই হেটার্স। দেখুন পোস্টের নমুনা।

মানে কতটা Cheap Mentality আর অশিক্ষিত হলে এরকম ভাবনা আসে মাথায়? এদের বোধহয় আদেও শিক্ষা দীক্ষা নেই।তা না হলে একটা Fun Post কে এতোটা দুর নিয়ে যেতে পারে। ধিক্কার জানাই এদের চিন্তাধারা কে । আর রইল সমকামীর কথা ।যদিও কেউ সমকামী প্রেম করে থাকে সেটা কি দোষের ।কয়েকদিন আগেও কলকাতা তে একটা সমকামী বিয়ে হলো ।কি হলো তাতে । আর বলছে সমকামী প্রেম নাকি সমাজ ধ্বংস করে দিচ্ছে। আমার তো মনে হচ্ছে কিছুজনের এরকম চিন্তাধারা সমাজ ধ্বংসের দিকে ।কতটা নিচু মানসিকতার এরা ছি!

আর কিছু মিঠাই ফ্যানদের বলছি – আপনারা একটা জিনিস নিয়ে শুরু করলে আর থামেন না ।যতক্ষণ না সেটা বিরাট আকার ধারণ করে । প্লিজ এরকম বোকামি করবে না এরপর”

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।