বাংলা সিরিয়াল

“শ্রাবণীর চরিত্রগুলিতে তার দাদা দিদি ভাই বোনের জীবনের সমস্যাগুলি সমাধান করতে করতেই কেটে যাচ্ছে” – নতুন ধারাবাহিক শুরু হতে না হতেই কটাক্ষের শিকার শ্রাবণী ভূঁইয়া

শ্রাবণী ভূঁইয়া, বর্তমানে টলি পাড়ার বেশ জনপ্রিয় নাম। বেশ কয়েকটি ধারাবাহিকের অভিনয় করে খুব অল্প সময়ের মধ্যেই মানুষের মনের কাছের অভিনেত্রী হয়ে উঠেছেন তিনি। সাম্প্রতি স্টার জলসার এক নতুন ধারাবাহিক মাধবীলতাতেও মুখ্য চরিত্র দেখতে পাওয়া যাচ্ছে শ্রাবণীকে। এর আগেও বেশ কয়েকটি ধারাবাহিকে দেখতে পাওয়া গেছে শ্রাবণীকে। যেমন : জীবন সাথী, কনককাঁকন ,রাখি বন্ধন।

এই প্রতিটি ধারাবাহিকেই আলাদা আলাদা চ্যানেল, আলাদা আলাদা চরিত্র হওয়া সত্ত্বেও শ্রাবনীর জীবনের কিছুই পরিবর্তন হয়নি। প্রত্যেকটি ধারাবাহিকের প্রত্যেকটি চরিত্রেই নিজের দাদা দিদি ভাই-বোনদের জীবনের সমস্যা সমাধান করতেই হারিয়ে যায় শ্রাবণী চরিত্র। তার ফলে দর্শকের লক্ষ্য তার দিক থেকে একেবারে সরে দাঁড়ায়। সেজে এক মুখো চরিত্র তা বোঝাই যায়না সম্পূর্ণ গল্পে। গল্প জুড়েই শুধু অন্যান্য চরিত্রের গল্প।

প্রধান চরিত্র হয়েও প্রধান চরিত্রসুলভ কোন গল্প খুঁজেই পাওয়া যায় না ধারাবাহিকে। মুখ্য চরিত্রের জীবনের সমস্যা থেকে অন্যান্য চরিত্র জীবনের সমস্যা এতটাই আলোচিত হয় যে গল্প মনে হয় তাদেরকে ঘিরে। যেমনই নতুন ধারাবাহিক কেউ মাধবীর বড় দিদি মানসিক ভারসাম্যহীন। দেখানো হচ্ছে তার জীবনে এমন কিছু দুর্ঘটনা ঘটেছিল যার কারণে তারই ফল। আর সেই সমস্যা সমাধানে ব্যস্ত মাধবী।

প্রসঙ্গত এর আগে রাখি বন্ধন ধারাবাহিকের দাদা বন্ধনের স্মৃতিশক্তি চলে যায়। আর সেখানেও লড়াই করতে হয় রাখি কে। জীবন সাথী ধারাবাহিক ও বোনের গায়ের রং কালো হওয়ায় তা নিয়ে নানান অত্যাচারের সম্মুখীন হতে হয় তার বোনকে। সেই সমস্যা দায়িত্ব এসে পড়ে শ্রাবণীর কাঁধে। এর আগে কনক কাকনেও দেখানো হয় দিদি হাঁপানি রোগ। সেই সমস্যা সমাধানও করেন নায়িকাই। এত সমস্যা মেটাতে মেটাতে চোখেই পড়ে না শ্রাবনীকে। তাই দর্শকদের একাংশ ব্যঙ্গ করে বলছে যে “শ্রাবণীর চরিত্রগুলিতে তার দাদা দিদি ভাই বোনের জীবনের সমস্যাগুলি সমাধান করতে করতেই কেটে যাচ্ছে নিজের জীবন দেখার মতো সময় পাচ্ছে না”।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।