বাংলা সিরিয়াল

আসছে “নিম ফুলের মালা”, নতুন ধারাবাহিকের অভিনয়ের সুযোগ দেওয়ার নামে ভুয়ো চক্র চলছে শহর জুড়ে! চ্যানেল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে দেওয়া হল বিশেষ বার্তা

উত্তম কুমারের জনপ্রিয় ডায়লগ “করব। আল বাত করবো। আই উইল গো টু দা টপ দা টপ দা টপ” মনে আছে নিশ্চয়ই? এমন একটি দৃশ্য যেটা মানুষের ভোলবার কথা নয়। সেখানে অরিন্দমের কন্ঠে ছিল এই ডায়লগটি। অরিন্দম এমন একটি উচ্চাকাঙ্ক্ষী পুরুষ যে চায় নিজের অভিনয় দক্ষতা দিয়ে অভিনয় জগতের সেরা হয়ে উঠতে। তবে এই সেরা হয়ে ওঠার পথে থাকে বেশ কিছু লড়াই। যে লড়াই লড়তে লড়তে বেশ কয়েকটি বছর কেটে যায় অরিন্দমের। পর্দার অরিন্দমের মতো এরকম বেশ কিছু অভিনেতা-অভিনেত্রী এখনো আছেন যারা নিজেদের পছন্দের কাজ অভিনয়টাই পেশা হিসেবে বেছে নিতে চান। তাই জন্য তাঁরা চেষ্টা করেন নানা পথে। আর সঠিক মানুষের অভাবে ভুল পথে হাঁটেন সেই সমস্ত ট্যালেন্টেড অভিনেতা অভিনেত্রীরাও।

এমন একটা সময় ছিল যখন টলিউডের পর্দায় এক ঝলক অভিনয় করবার জন্য হন্যে হয়ে স্টুডিও করায় বসে থাকতেন অভিনেতা অভিনেত্রীরা। কিন্তু এখন বিষয়টা অনেক বদলেছে। অনেক অভিনেতা-অভিনেত্রী সুযোগ পাচ্ছেন নিজেদের অভিনয় দক্ষতা ছোট পর্দার মাধ্যমে প্রমাণ করতে। এর কারণ একাধিক নতুন নতুন ধারাবাহিক পর্দায় আসা। যদিও যে কোন ইন্ডাস্ট্রিরই যেমন ভালো দিক আছে তেমন কিছু খারাপ দিকও রয়েছে।

আরে খারাপ দিকগুলিকে ফুটিয়ে তুলছে বেশ কিছু কোম্পানি। যারা অভিনয়ের নামে নিজেদের ভুয়ো প্রতিষ্ঠান চালাচ্ছেন। প্রতিষ্ঠান চালাচ্ছেন প্রচুর অর্থের বিনিময়ে অভিনয়ে সুযোগ করিয়ে দেওয়ার কথা দিচ্ছে। কিন্তু আদেও তারা কোন সুযোগ করে দিতে পারবেন না। এরকম ঘটনা অহরহই হয়ে চলেছে শহরের বুকে। আবারো এই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি হল।

জি বাংলায় আসতে চলেছে নতুন ধারাবাহিক “নিম ফুলের মধু”। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ধারাবাহিকের পোস্টার এর ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, “পুরুষ এবং মহিলা অভিনেতা প্রয়োজন। পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে বাছাই করা হবে”। এই পোস্টার দেখেই জি বাংলার তরফ থেকে সজাগ হয়ে উঠেছেন কর্তৃপক্ষ। কারণ “নীল ফুলের মধু” জি বাংলা কর্তৃপক্ষের নিজস্ব প্রযোজনা। তাই এই বিষয়টি ভুয়ো না সত্যি এটা নিয়ে বেশ ভালই সরগরম হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

একটি বিশিষ্ট সংবাদমাধ্যমের তরফে সৃজিত রায়ের সঙ্গে এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে তিনি বললেন, “এই ধরনের ঘটনা দিনে দিনে বেড়েই চলেছে। চারপাশে প্রচুর অভিনয় প্রশিক্ষণের ভুয়ো প্রতিষ্ঠান গজিয়ে উঠছে। টাকা নিয়ে আমরা অভিনয়ের সুযোগ দিই না। বরং উল্টোটা। অভিনয়ের বিনিময়ে আমরা পারিশ্রমিক দিই। এই ভুয়ো লোভ দেখানো বন্ধ করা হোক”। এই ধরনের ঘটনা এর আগেও বহুবার ঘটেছে। জি বাংলা চ্যানেলের কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে অভিনয়ে কাজ দেওয়ার নামে লোক দেখানো বন্ধ করা উচিত।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।