বাংলা সিরিয়াল

নিজের গানের শিক্ষককেই বিয়ে করেছিলেন অভিনেত্রী রূপসা চক্রবর্তী। জেনে নিন তার জীবনের কাহিনী।

অভিনেতা অভিনেত্রীদের ব্যক্তিগত জীবনের কথা জানতে মুখিয়ে থাকে তাদের ভক্তেরা। ভক্তদের মনে একটাই প্রশ্ন অভিনেত্রীরা টেলিভিশনের পর্দায় যেসব চরিত্রে অভিনয় করেন তারা কি বাস্তবেও সেই রকম নাকি আলাদা? সেই রকমই কিছু প্রশ্নের উত্তর দিতে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়েছিলেন অভিনেত্রী রূপসা চক্রবর্তী।

সুন্দর সাবলীল অভিনয় ও বড় বড় টানা টানা চোখের জাদুতে পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করেও বাংলা ছোট পর্দার জগতে এখন বেশ জনপ্রিয় ও পরিচিত মুখ রূপসা চক্রবর্তী। পার্শ্ব চরিত্রে হলেও বেশ বেছে বেছে প্রতিবাদী চরিত্রগুলি বেছে নেন এই অভিনেত্রী।

আসুন জেনে নিই তার জীবনের ওঠা পড়ার কাহিনী।

অভিনয় জগতে আসার আগে আর পাঁচটা অতি সাধারণ মেয়ের মত জীবনধারনেই অভ্যস্ত ছিলেন এই সুন্দরী অভিনেত্রী। পড়াশোনার পাশাপাশি গান নিয়ে চর্চা করতে তিনি ছোট থেকেই খুব পছন্দ করতেন। সেই ইচ্ছে থেকেই গানে তালিম নিতে ভর্তি হয়েছিলেন এক গানের মাস্টারের কাছে। তখন তিনি মাস্টার্স পড়ছিলেন । তারপর ছয় সাত মাস গানও শিখলেন। কিন্তু তারপরেই তার জীবন মোড় নিল এক্কেবারে অন্যদিকে যা প্রায় বলা যায় রাতারাতি পাল্টে দিল এই অভিনেত্রীর ভাগ্য। সেই গানের মাস্টারের সাথে তার বিয়ে হয়ে গেল। আর এই গানের মাস্টারই হলেন ব্লুজের কর্ণধার স্নেহাশীষ চক্রবর্তী , যিনি বর্তমানে জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী রূপসা চক্রবর্তীর স্বামী। স্বামীর হাত ধরেই অভিনয় জগতে পদার্পণ রুপসার।

অভিনয় জগতে পদার্পণ করার আগে তিনি বেশ কয়েকটি সিরিয়ালে প্লেব্যাক সিঙ্গার হিসেবেও কাজ করেছেন এবং সফলতাও পেয়েছিলেন। তবে একজন অভিনেত্রী হিসেবে তিনি বর্তমানে আরো অনেক বেশি সফল। স্টার জলসায় এক বিখ্যাত ধারাবাহিক ছিল “খোকাবাবু” , তাতে পার্শ্ব চরিত্র “বৌদির” ভূমিকায় অভিনয় তাকে জনপ্রিয়তার শীর্ষে তুলে দিয়েছিল। অভিনেত্রী জানিয়েছেন, শুধু তিনি নয় টেলিভিশনের আরো অনেকেই তার স্বামী স্নেহাশীষ চক্রবর্তীর কাছ থেকে গানে শিক্ষা লাভ করেছেন।

স্নেহাশীষ আর একমাত্র পুত্রকে নিয়ে তার এখন সুখের সংসার। তবে এই সংসারের যাবে ছেলের পাঁচ বছর বয়স অবধি অভিনয় থেকে দূরেই ছিলেন তিনি বরং এখন তার ১১ বছরের ছেলে এবং তার স্বামীর অনুপ্রেরণায় তিনি সংসার সামলেও অভিনয় করেন।
এক কথায় তিনি প্রমাণ করে দিয়েছেন “যে রাঁধে সে চুলও বাঁধে।”

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।