Uncategorized

‘লেখায় গণতন্ত্র চলে না’, ‘খড়কুটো’য় গুনগুনের মৃত্যু নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন লীনা গঙ্গোপাধ্যায়

সম্প্রতি শেষ হতে চলেছে খড়কুটো ধারাবাহিক। গুনগুনের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে এই সিরিয়ালটি শেষ হবে। অভিষেক চট্টোপাধ্যায় এর মৃত্যুর পর থেকে এই সিরিয়ালের ভিতটাই যেন নরে গেছে। টিআরপি তালিকাতেও খুব খারাপ ফল হতো। তাই হয়তো এই সিরিয়ালটি কে এবার শেষ করে দেওয়া হচ্ছে। আর শেষ করা হবে গুনগুনের মৃত্যুর মধ্যে দিয়ে।

খড়কুটোয় গুনগুনের মৃত্যুর পর থেকে বিভিন্ন ফ্যান পেজগুলোতে চোখ রাখলে দেখা যায় নেটিজেনরা কাঠগড়ায় তুলেছে লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায় কে। কেন ‘হ্যাপি এন্ডিং’ পেল না মুখোপাধ্যায় পরিবারের আখ্যান? কেনই বা মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিতে হল গুনগুনকে? এমনই নানা ধরনের প্রশ্ন উঠে আসছে লেখিকার বিরুদ্ধে। সোশ্যাল মিডিয়াতে চোখ রাখলেই দেখা যাচ্ছে লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে নেটিজেন্ডরা খোলা চিঠি লিখছেন। তারই সঙ্গে চলছে নানা সমালোচনা ও কটাক্ষ।

এই প্রসঙ্গে এবার মুখ খুললেন লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, ‘একটা ভালোলাগার চরিত্র চলে গেলে কষ্ট লাগবেই। কিন্তু লেখকেরও তো একটা ইচ্ছা-অনিচ্ছার ব্যাপার থাকে। তিনি যখন একটি গল্প তৈরি করেন, তখন সেখানে কোন চরিত্রের জার্নি কোথায় শেষ হবে, তা লেখকই ঠিক করবেন। লেখায় কোনও গণতন্ত্র চলে না।’

দর্শকদের এমন প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের যুক্তি হল ‘আমার মনে হয়েছিল, এ রকম কিছু একটা হলেই মানুষ সারা জীবন গুনগুনকে মনে রাখবেন। সেই জন্যই এটা করা। জীবন তো থেমে থাকে না। এগিয়ে চলে। আর সেটা দেখার জন্যই ধারাবাহিকের শেষ দিন অপেক্ষা করতে হবে। গল্পে একটা টুইস্ট আছে। আমার মনে হয় সেটা দেখে দর্শকের দুঃখ কিছুটা হলেও কমতে পারে।’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।