রাজ্য

‘বেইমান কেষ্ট মন্ডল চলে গেল দে ভোট দে তৃণমূলকে’ একাধিক মামলায় ফেঁসে নিজেকে নিয়েই বিস্ফোরক বক্তব্য রাখলেন বীরভূমের অনুব্রত মণ্ডল!

কথায় বলে মরার ওপর খাঁড়ার ঘা, সত্যি বিপদ যেন পিছু ছাড়ছে না বীরভূমের জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের। একটার পর একটা কেসে জড়িয়ে যাচ্ছে তার নাম। ভোট পরবর্তী হিংসার অভিযোগে তার নাম জড়িয়ে ছিলো, সেই কেস মিটতে না মিটতেই গরু পাচার মামলায় তার নাম জড়িয়ে পড়ে। ভোট পরবর্তী হিংসার অভিযোগ ও গরু পাচার মামলায় সিবিআই অনুব্রত মণ্ডল কে ডেকে পাঠায়। যদিও অনুব্রত মণ্ডলের বক্তব্য তাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে তিনি কিছুই করেননি।

মঙ্গলবার তিনি বলেন যে, কিছুদিনের মধ্যেই জেলা জুড়ে রাজনৈতিক কর্মসূচি শুরু করবেন। মঙ্গলবার ভোট পরবর্তী হিংসা মামলা ও গরু পাচার মামলা প্রসঙ্গে অনুব্রত মণ্ডল বলেন,“ আমি চুরিও করিনি ডাকাতিও করিনি। আমি মহাদেবের ভক্ত ওরা যেটা বলে ডাকছে সেটা মিথ্যা।”

একই সাথে অনুব্রত মণ্ডল বলেন, বিজেপি সাংগঠনিক দিক থেকে তৃণমূল কংগ্রেসকে কোনভাবেই আটকাতে পারছে না বলে তারা এই ভাবে বিভিন্ন রকম চক্রান্ত করে তৃণমূলের নেতাদেরকে ফাঁসাচ্ছে। অনুব্রত মণ্ডলের কথায়,“ বিজেপি সংগঠন করে তৃণমূলকে রুখতে পারছে না বলেই বিভিন্ন ধরনের নোংরামি করছে। তৃণমূলের লোক দিয়ে কি আর বিজেপি করা যায়? আমি যদি বিজেপিতে যাই তাহলে তৃণমূলের লোক তো আরো সক্রিয় হবে। তারা তো তখন বলবে, ‘বেইমান কেষ্ট মন্ডল চলে গেল দে ভোট দে তৃণমূলকে।’ সংগঠনের লোক তৈরি করে রাজনীতি করতে হবে। আমি বাম কংগ্রেসের সঙ্গে লড়াই করে উঠে এসেছি।”

একই সাথে কেষ্ট দা এও বলেছেন যে, তিনি শ্বাসকষ্টে ভুগছেন তবে নিজের রোগ কে তিনি একেবারেই তোয়াক্কা করেন না। ‌ খুব শীঘ্রই তিনি আবার রাজনীতির ময়দানে ফিরবেন বলেও জানিয়েছেন। অনুব্রত মণ্ডলের কথায় পূজোর পর সব ব্লকে সভা করবো।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।