Stories

হতে চেয়েছিলেন চার্টার্ড একাউন্টেন্ট, হয়ে গেলেন খল নায়িকা! খলনায়িকার ভূমিকায় অভিনয় করেন বলে এখনো শুনতে হয় কটাক্ষ, জানুন মিশমি দাসের জীবনের গল্প

মানুষ ভাবে এক, হয় আর এক। মানুষের ভাগ্যের চাকা কখন কিভাবে যে বদলে যায় তা কেউ বলতে পারে না। আজ এমনই এক অভিনেত্রীর গল্প শোনাবো আপনাদের যিনি বাস্তবে হতে চেয়েছিলেন চার্টার্ড একাউন্টেন্ট, কিন্তু ভাগ্যের ইচ্ছায় হয়ে উঠলেন অভিনেত্রী।

মিশমি দাস ওরফে রিনি এই মুহূর্তের বাংলা টেলিভিশনের অন্যতম পরিচিত এক মুখ।নায়িকা নন,খল নায়িকার চরিত্রে অভিনয় করে জিতে নিয়েছেন দর্শকদের হৃদয়। ছোটবেলা থেকে অনেকের আশা থাকে যে বড় হয়ে নায়ক বা নায়িকা হওয়ার। কিন্তু মিশমি নেগেটিভ চরিত্রে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পেরে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করেন।

মিশমি এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন, অন্যান্য চরিত্রের থেকে খল চরিত্র করা অনেকটাই কঠিন। খল চরিত্রের মধ্যে থাকে অনেকগুলি স্তর। পেঁয়াজের খোসার মতো একটা একটা করে স্তর বাদ দিয়ে প্রবেশ করতে হয় ভিতরে। প্রত্যেকবারই নতুন করে আবিষ্কার করা যায় নিজেকে। তাছাড়াও এই অভিনেত্রীর মনে হয়েছে যে নেগেটিভ চরিত্রে অভিনয় করার বাড়তি সুযোগ থাকে। শিল্পী হিসেবে নিজেকে মেলে ধরতে গেলে নেগেটিভ ক্যারেক্টার অনেক সময় সাহায্যকারী হয়ে ওঠে।

অনেকেই হয়তো জানেন না বর্তমানে টেলি জগতের ব্যস্ত এই অভিনেত্রী চেয়েছিলেন বড় হয়ে চার্টার্ড একাউন্টেন্ট হতে। কিন্তু ২০১৪ সাল নাগাদ তার ভাগ্যের চাকা ঘুরে যায়। শখের বসে কলেজে পড়াকালীন করতেন মডেলিং। ২০১৪ সাল নাগাদ জি বাংলার ‘ রাজযোটক ‘ সিরিয়ালের মাধ্যমে তার অভিনয় জগতে প্রবেশ ঘটে।মিশমির অভিনয় পছন্দ করতে শুরু করেন দর্শকরা। পরবর্তীতে  ‘ফাগুন বউ’, ‘জিয়নকাঠি’, ‘গাছকৌটো’ ইত্যাদি সিরিয়ালে অভিনয় করে টেলি ইন্ডাস্ট্রিতে নিজের পাকাপাকি জায়গা তৈরি করে ফেলেন। বর্তমানে ‘আমাদের এই পথ যদি না শেষ হয়’ সিরিয়ালে অভিনয় করে ফের একবার দর্শকদের নজর কেড়ে নিচ্ছেন মিশমি।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।