রাজ্য

গরিব মানুষদের ত্রাণকার্যে দেওয়া ৭৬ লক্ষ টাকা চুরি করে উধাও তৃণমূল পঞ্চায়েত প্রধান! বাজেয়াপ্ত অভিযুক্তের সমস্ত সম্পত্তি

২০১৭ সালে মালদা জেলার কুশিধা গ্রাম পঞ্চায়েতে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য প্রায় ৭৬ লক্ষ টাকা অনুদান কার্য পাঠানো হয়েছিল। তবে এরপর গ্রামবাসীরা কোন টাকা পাননি, এমন অভিযোগ বারংবার জানাতে থাকেন। তদন্ত শুরু হলে দেখা যায় ক্ষতিগ্রস্থদের নামের পাশে অন্য ব্যাংক একাউন্ট দিয়ে তুলে নেওয়া হয়েছে ত্রাণের টাকা।

এরপরই কুশিধা গ্রামের তৃণমূল পঞ্চায়েত প্রধান সোনামনি সাহাকে গ্রেপ্তারের উদ্দেশ্যে অভিযান শুরু করে পুলিশ। তবে তদন্ত শুরু হওয়ার পরপরই উধাও হয়ে গিয়েছিলেন ওই অভিযুক্ত তৃণমূল পঞ্চায়েত প্রধান। তবে শেষ পর্যন্ত তাকে না পেয়ে তার সমস্ত সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল মালদা পুলিশ।

প্রসঙ্গত সোনামণি উধাও হয়ে যাবার পর তার নামে জারি করা হয়েছিল হুলিয়া। কিন্তু এক মাসের মধ্যে তিনি আত্মসমর্পণ না করায় হরিশ্চন্দ্রপুরের বরুই গ্রাম পঞ্চায়েতে তার বাড়িতে নোটিশ জারি করেছিল পুলিশ। তবে জানা গেছে তাতেও ফিরে আসেননি ওই অভিযুক্ত তৃণমূল প্রধান।

ফলাফল হিসেবে এদিন আদালতের নির্দেশে অভিযুক্তের বাড়ি থেকে ওয়াশিং মেশিন, টিভি, আলমারি সহ আসবাবপত্র এবং মূল্যবান সামগ্রী বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। জানা গিয়েছে তার অন্যান্য স্থাবর এবং অস্থাবর সম্পত্তিও বাজেয়াপ্ত করা হবে। প্রসঙ্গত এই তদন্তে মূল অভিযোগকারীর ভূমিকা নিয়েছিলেন বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান। তিনিই প্রথম দায়ের করেছিলেন অফিশিয়াল অভিযোগ।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।