দেশ

স্ত্রীকে খুনের দায়ে স্বামী জেলে! স্ত্রী প্রেমিকের সংসারে বহাল তবিয়তে সংসার করছেন!

পৃথিবীতে কত অদ্ভুত অদ্ভুত ঘটনা ঘটে যা আমরা টের পাইনা। আমরা ধারাবাহিক দেখে ভাবি মৃত মানুষ কী করে ফিরে আসে যতসব আজগুবি ঘটনা! কিন্তু অনেক সময় বাস্তবেও মৃত মানুষ ফিরে আসে। হ্যাঁ বিহারে এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে। স্ত্রীকে খুনের দায়ে জেল খাটছিলেন স্বামী! আচমকা দেখা গেলো বহাল তবিয়তে বেঁচে আছেন মৃত স্ত্রী, এখানেই চমকের শেষ নয়, জীবিত স্ত্রীর খোঁজ মিললো প্রেমিকের সংসারে।

আসলে বিয়ে এমন একটা জিনিস যা ভুল মানুষের সাথে করলে সারাজীবন পস্তাতে হয়। তাই বলা হয় লাখ কথার কমে বিয়ে হয় না বা হওয়া উচিতও নয়। কারণ বিয়েটা শুধুমাত্র দুটো পরিবারের বিষয় নয় তার সাথে দুটো মানুষের সারা জীবনের ভালো থাকা ও সুখে থাকার বিষয় লুকিয়ে থাকে। তাই বিয়ে করার আগে যাকে বিয়ে করছেন তার সম্পর্কে ভালোমতো খোঁজখবর নিয়ে তবেই বিয়ে করা উচিত, নৈলে বিহারের হরিশ কুমারের মতো পরিণতি হতে পারে।

দিন দশেক আগে হরিশের শ্বশুরবাড়ির লোকেরা অভিযোগ করেন যে ৫০ হাজার টাকা পণ দিতে না পারায় পরিবারের সাথে মিলে তাদের মেয়েকে খুন করেছে জামাই হরিশ। হরিশের সাথে এক্ষেত্রে তাদের মা-বাবা এবং ভাই ও জড়িত বলে অভিযোগ করেন তারা। তারা অভিযোগ করেছিলেন যে পণের টাকা দিতে না পারায় মেয়ের ওপর চাপ সৃষ্টি করে শ্বশুরবাড়ির লোকজন এবং তারপর তাকে খুন করে তারা। এই অভিযোগের ভিত্তিতেই হরিশকে গ্রেফতার করা হয়, ও স্ত্রীকে খুনের অভিযোগে জেল খাটতে থাকে সে।

এরপর ঘটনার তদন্তে নামেন তদন্তকারীরা। আসল ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই অবাক হয়ে যান তারা! এও কি সম্ভব? বিহারের চম্পারন জেলার বাসিন্দা হরিশ কুমারের শ্বশুরবাড়ির লোকেদের উপর নজর রাখতে শুরু করে পুলিশ। তদন্তে উঠে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য, জানা যায় ওড়িশা স্ত্রীর পরিবারের কয়েকজন সদস্য একটি নাম্বারে ফোনে যোগাযোগ রাখছেন। সেই ফোন নাম্বার ট্রাক করে পুলিশ জানতে পারে, হরিশ কুমারের স্ত্রী খুন হন নি প্রেমিকের সাথে পালিয়ে গিয়ে পাঞ্জাবের জালন্ধরে আশ্রয় নিয়েছেন।

আসল সত্য জানতে পেরে বিহারের পুলিশ পাঞ্জাব পুলিশের সাথে যোগাযোগ করে এবং তাদের সহযোগিতায় হরিশ কুমারের স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করা হয় তবে তার প্রেমিকের এখন‌ও অবধি খোঁজ মেলেনি প্রেমিকের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ। অন্যদিকে পুরো ঘটনা জানতে পেরে হরিশ কুমার ও তার পরিবার রীতিমতো অবাক হয়ে গিয়েছেন।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।