দেশবিদেশ

ভারতকে টেকনোলজিক্যাল পাওয়ার হাউস বলে মোদির প্রশংসা করলেন EU প্রেসিডেন্ট

সোমবার রাজধানী দিল্লিতে ইউক্রেন রাশিয়ার রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের আবহে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (EU) প্রেসিডেন্টের সাথে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক হলো। সূত্রের খবর অনুযায়ী এইদিন ইউরোপীয় ইউনিয়নের (EU) প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভনডের লিয়েনের সাথে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বৈঠক যথেষ্ট ইতিবাচক এবং আশাপ্রদ হয়েছে। এই বৈঠকে একাধিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এমনকি ভারতের সঙ্গে নতুন সম্পর্ক তৈরি করার বিষয়েও আগ্রহ প্রকাশ করেছেন ইইউ প্রেসিডেন্ট। এই বৈঠক প্রসঙ্গে বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র একটি টুইট করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচী এই দিন সোশ্যাল মিডিয়ায় করা টুইটে লেখেন,“আজ দিল্লিতে ইইউ প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভনডের লিয়েনের সাথে বৈঠক সারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ইন্ডিয়া-ইইউ স্ট্র্যাটেজিক পার্টনারশিপের অগ্রগতি খতিয়ে দেখেন দুই প্রধান। এছাড়া, বাণিজ্য, পরিবেশ, ডিজিটাল টেকনোলজি ও জন সম্পর্ক আরও মজবুত করে তোলার বিষয় সহমত প্রকাশ করেন দুজনে।”

একই সাথে এই বৈঠকের পর ভারতের সাথে “ট্রেড অ্যান্ড টেকনলজি কাউন্সিল” গড়ে তোলার বিষয়ে উরসুলা আগ্রহ দেখিয়েছেন।প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এখনো পর্যন্ত একমাত্র আমেরিকার সাথেই ইউরোপীয় ইউনিয়নের এইরকম কাউন্সিল গড়ে উঠেছে, তাই ভারতের সাথে যদি ইউরোপীয় ইউনিয়নের এই রকম কাউন্সিল গড়ে ওঠে ভীষণভাবে লাভদায়ক হবে দুই দেশের সম্পর্কের উন্নতির জন্য।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাউন্সিল গড়ার এই সিদ্ধান্তে নিজের উচ্ছ্বাস ব্যক্ত করেছেন EU প্রেসিডেন্ট। এই ট্রেড এন্ড টেকনোলজি কাউন্সিল গড়ে ওঠার ফলে দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য ও প্রযুক্তি হস্তান্তরের পথ অনেক বেশি সহজতর হয়ে উঠবে। এর পাশাপাশি EU‌ প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভনডের লিয়েন প্রধানমন্ত্রী মোদির সাথে বৈঠক চলাকালীন ভারতকে ‘টেকনোলজিক্যাল পাওয়ার হাউস’ বলে উল্লেখ করেন, যা যথেষ্ঠ তাৎপর্যপূর্ণ। এরপরই প্রেসিডেন্ট ভারত এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের দীর্ঘ সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে বলেন, “এই বছর ভারত-EU সম্পর্কের ৬০ তম বর্ষপূর্তি। তাই আজকের দিনে এই সম্পর্কের গুরুত্ব আরো বেড়েছে। আমরা বর্ধিষ্ণু গণতন্ত্র এবং বৃহৎ অর্থনীতি কিন্তু আজ আমরা একাধিক চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছি।”

ভারতের প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির সাথে বৈঠকের আগে EU প্রেসিডেন্ট উরসুলার সাথে ভারতের বিদেশ মন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বৈঠক করেন। সেই সময়ও ইরান যুদ্ধের আবহে তৈরি হওয়া রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক সমস্যার বিষয়গুলি আলোচিত হয় বলেই খবর।

ইউরোপীয় প্রেসিডেন্ট যেমন ভারতের প্রশংসা করেছেন, ঠিক এক‌ইভাবে বৈঠক চলাকালীন উরসুলা ভনডের লিয়েনের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি। তিনি ভারত ও ইউরোপ এই দুই দেশের সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরও উন্নতির পথে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।