দেশ

‘নেতাজী প্রধানমন্ত্রী হলে আজ দেশে এত দুঃখ-যন্ত্রণা থাকতো না’! প্রকাশ্যে দাবি করে বসলেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী

চলতি সপ্তাহে গয়েশপুরের গোল বাজারে বিজেপির কার্যালয় ভাঙচুর এবং বিজেপি কর্মীদের মারধরের অভিযোগ উঠেছিল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। এদিন এলাকা পরিদর্শনে গিয়েছিলেন বিরোধী নেতা শুভেন্দু অধিকারী। সেখানেই সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয় নানা প্রসঙ্গে মুখ খুলতে দেখা গিয়েছে তাকে।

প্রসঙ্গত শনিবার কেন্দ্রীয় প্রকল্পের বাস্তবায়ন নিয়ে বিভিন্ন জেলার শাসকদের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু সেখানে যোগদান করেননি পশ্চিমবঙ্গের কোন জেলা শাসক। এ ব্যাপারে মুখ খুলে ক্ষুব্ধ শুভেন্দু অধিকারী জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের আইপিএস, আইএস এবং সেন্ট্রাল ক্যাডাররা কেন্দ্রীয় সরকারের সুযোগ-সুবিধা ভোগ করেন। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথায় তারা চলাফেরা করেন। তিনি আরো জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় সরকার খুব শীঘ্রই আইপিএস ও আইএএস অফিসারদের নিয়ন্ত্রণ করার জন্য বিশেষ আইন আনছে যা চালু হলে মুখ্যমন্ত্রীর কথা আর শুনবেন না জেলাশাসকরা।

বর্তমান ভারতবর্ষের বেকারত্ব এবং অন্যান্য সমস্যা নিয়েও এদিন কথা বলেছেন শুভেন্দু অধিকারী। জানিয়েছেন তিনি মনে করেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বোস যদি ভারতবর্ষের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হতেন তাহলে আজকের ভারতবর্ষে জ্বালা যন্ত্রণা এবং বেকারত্ব অনেক কম হতো। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রসঙ্গে বিরোধী নেতা জানিয়েছেন ত্রিপুরাতে এবং গোয়াতে তৃণমূলকে সংবাদ মাধ্যম প্রচুর পরিমাণ গুরুত্ব দিচ্ছে, তবে বাস্তবে তৃণমূল মোটেও অত গুরুত্ব পাচ্ছে না এই সমস্ত রাজ্যে এমনটাই মতামত শুভেন্দু অধিকারীর।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।