দেশ

পাত্রীর অসহায়তার কথায় গলে সোজা বিয়ে করে ছেলেটি! বিয়ে মিটতেই, গয়না নিয়ে চম্পট নববধূ

বিয়ে এমন একটা জিনিস যাতে একটু ভুল হয়ে গেলেই সারাটা জীবন আফসোস করতে হয়। তাই বিস্তর খোঁজখবর নেওয়ার পরই একটা বিয়ে হয়। তবু কিছু কিছু ক্ষেত্রে ভুলত্রুটি ঘটে যায়, হামেশাই দেখা যায় বিয়ের নামে প্রতারণা করেছে বরপক্ষ এবং প্রতারণা করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়েছে। কিন্তু এইবার ঘটনাটি সম্পূর্ণ রকম উল্টো ঘটেছে। বরপক্ষ নয় এইবার প্রতারণার দায়ে গ্রেপ্তার হলেন একজন নববধূ। উত্তর ২৪ পরগনার বাগদা গ্রাম পঞ্চায়েতের দেয়ালদহ গ্রামে এরকম একটি ঘটনা ঘটেছে, যা শুনে স্বাভাবিকভাবেই সকলে চমকে যাচ্ছেন।

স্থানীয় সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী, দেয়ালদহ গ্রামের একটি পরিবারের সদস্যরা তাদের বাড়ির ছেলের বিয়ে দেওয়ার জন্য পাত্রীর খোঁজ করেছিলেন। এরপর গত ২০শে এপ্রিল চাকদহ থেকে শান্তি বিশ্বাস নামের একজন মহিলা ঘটক রাখি বিশ্বাস নামের একজন পাত্রীকে নিয়ে পাত্রের বাড়িতে হাজির হন। পাত্রীর সম্পর্কে ওই ঘটক পাত্রের পরিবারকে জানায়, পাত্রীর মা নেই, তার বাবাও মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন। তাই কোন আত্মীয়-স্বজনও তার সাথে যোগাযোগ রাখে না। একেবারেই অসহায় মেয়ে সে। এই সমস্ত কথা শুনে পাত্রের পরিবার বিয়েতে রাজি হয়ে যায়, সেই দিনই তারা বিয়ের বন্দোবস্ত করে। এরপর গত ২৩শে এপ্রিল রবিবারে প্রতিবেশীদের নেমন্তন্ন করে বৌভাতের আয়োজন করে তারা।

দয়া মায়ায় বিগলিত হয়ে সেই পাত্রীর সাথে ছেলের বিয়ে দিলেও বিয়ের পর থেকেই শ্বশুরবাড়ির সদস্যদের নববধূর আচরণ নিয়ে খটকা লেগেছে। এরপর বৃহস্পতিবার পরিবারের সদস্যদের নববধূ বলেন চাকদহতে ডাক্তার দেখাতে যাবেন, প্রথমদিকে কেউ কোনো রকম সন্দেহ করেনি। কিন্তু বিয়ে উপলক্ষে পাওয়া গয়না নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করতেই পাত্রের পরিবারের সন্দেহ হয়।

তখন স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির বাকি সদস্যরা নববধূকে চেপে ধরেন এবং তারা জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে দেন এরপর নববধূ যা বলেন তাতে চক্ষুচড়কগাছ হয়ে যায় পাত্রের পরিবারের। জেরার মুখে পড়ে নববধূ স্বীকার করে নেয় আগেও তার একাধিক বিয়ে হয়েছে। একাধিক জায়গা থেকে বিয়ে করে সম্পত্তি হাতানোর অভিযোগ আছে তার নামে। এরপর পাত্রের পরিবারের তরফ থেকে বাগদা থানা নববধূর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়। এই লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতেই প্রতারক নববধূকে গ্রেফতার করা হয়। গত শুক্রবার বাগদা থানার পুলিশ অভিযুক্ত নববধূ রাখি বিশ্বাসের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা রুজু করে বনগাঁ মহাকুমা আদালতকে‌ পাঠায়।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।