বলিউড

হিন্দি আমাদের রাষ্ট্রভাষা ছিল আছে থাকবে’ অজয় সুদীপের টুইটযুদ্ধ! আগুনে ঘি ঢাললেন রামগোপাল ভার্মা

দেশের রাষ্ট্রভাষা কী হবে তা নিয়ে এর আগে অনেক শোরগোল হয়েছে। হিন্দি বলয়ের লোকজন বরাবরই হিন্দি ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা করতে উদগ্রীব হয়ে ছিলেন। অন্যদিকে দক্ষিণী রাজ্যগুলিতে সমালোচনার ঝড় উঠেছিলো। হিন্দিকে রাষ্ট্রভাষা করার বিপক্ষে তারা মত রেখেছিলেন। এই নিয়ে বিজেপি শিবিরের লোকজন হিন্দিকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে মর্যাদা দিতে সোচ্চার হয়েছিলো। এই প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বক্তব্য রেখেছিলেন যে, দেশে এমন একটি সর্বজনীন ভাষার প্রয়োজন যা আন্তর্জাতিক স্তরে ভারতের পরিচিতির ছাপ রাখে। এই ভারতবর্ষে নানা ভাষাভাষীর লোক বাস করেন,‌ তার মধ্যে কেন্দ্রীয় শাসক দল একদেশ এক ভাষার পক্ষে সওয়াল করেছিলেন। সম্প্রতি একটি টুইটের জন্য আবার‌ও হিন্দি ভাষা রাষ্ট্র ভাষার সেই প্রসঙ্গ উঠে এলো।

সম্প্রতি দক্ষিণী স্টার কিচ্চা সুদীপ একটি সাক্ষাৎকারে প্যান ইন্ডিয়া সিনেমা নিয়ে কথা বলছিলেন। ‘KGF2’ খ্যাত সেই স্টার তখন হিন্দি ভাষাকে আক্রমণ করে বলে বসেন,“ হিন্দি আর এখন আমাদের জাতীয় ভাষা নয়…”- সুদীপের বলা এই বক্তব্য নজরে পড়ে গিয়েছিল বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা অজয় দেবগনের। তিনি পাল্টা টুইট করেন।

সুদীপকে এক হাতে নিয়ে অজয় হিন্দি ভাষায় লেখেন,“ কিচ্চা সুদীপ ভাই আপনার কথা অনুযায়ী হিন্দি আমাদের রাষ্ট্রভাষা যদি না হয়, তাহলে আপনারা নিজেদের মাতৃভাষার ছবিগুলোকে কেন হিন্দিতে ডাবিং করে রিলিজ করেন? হিন্দি আমাদের মাতৃভাষা, রাষ্ট্রভাষা ছিল, আছে, থাকবে। জণ গণ মন।”

অজয়ের এই টুইটের পাল্টা টুইট করেন কিচ্চা সুদীপ। তিনি লেখেন, “স্যার আপনি হিন্দিতে যা লিখেছেন আমি বুঝেছি। কারণ আমরা সবাই হিন্দি ভাষাকে ভালবাসি, শ্রদ্ধা করি। আর তাই হিন্দি ভাষা শিখেছি কিন্তু ভাবছি আমি যদি টুইটটা কান্নাড়া ভাষায় লিখতাম, তাহলে পরিস্থিতিটা কেমন দাঁড়াত? আচ্ছা আমরা কি ভারতের অংশ ন‌ই?”

এই দুটো টুইটের অংশ নিয়ে রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। দক্ষিণের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা যেমন কুমারাস্বামী, সিদ্দারামাইয়া প্রভৃতিও হিন্দিকে রাষ্ট্রভাষা বলায় টুইটে প্রতিবাদ করেছেন। এই নিয়ে যখন তীব্র তর্ক-বিতর্ক চলছে সেই সময় রামগোপাল ভার্মা আগুনে ঘি ঢালার মতো নতুন করে একটি টুইট করেন যা নিয়ে চারিদিকে আবার নতুন করে মতবিরোধ সৃষ্টি হয়েছে।

পরিচালক রামগোপাল ভার্মা লেখেন,“কিচ্চা সুদীপ আসলে উত্তরের তারকারা দক্ষিণী তারকাদের মোটেই নিরাপদ বলে মনে করে না। হিংসেও করে। কারণ, কান্নাড়া ছবি KGF2- বক্সঅফিসে প্রথম দিনেই ৫০ কোটি আয় করে ফেলেছে আর আমরা সকলে তো দেখেছি যে এক একটা হিন্দি ছবির ওপেনিং আয় কত?”

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।