বলিউড

শিব লিঙ্গ নিয়ে কিছু বলেন না ইসলাম ধর্মালম্বীরা! পয়গম্বর বিতর্কে নুপূরের বিরোধিতা করে সরব হলেন নাসিরুদ্দিন!

পয়গম্বর হজরত মহম্মদকে নিয়ে বিজেপির প্রাক্তন জাতীয় মুখপাত্র নুপুর শর্মার অবমাননাকর বক্তব্য ঘিরে রীতিমতো আলোড়ন সৃষ্টি হয়ে গিয়েছে। হজরত মহম্মদকে নিয়ে অবমাননাকর মন্তব্য করার জন্য বিজেপি নেত্রী নুপুর শর্মাকে সাসপেন্ড করে দিয়েছে বিজেপি পার্টি। ‌ তার বিতর্কিত মন্তব্যের বিরুদ্ধে এখন‌ও অবধি কোন মন্তব্য প্রকাশ করেন নি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সম্প্রতি এই প্রসঙ্গে মুখ খুললেন বর্ষীয়ান অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহ।

সম্প্রতি একটি সংবাদ মাধ্যমে সাক্ষাৎকার করে তিনি বলেন, তিনি চান এই বিষয়ে যেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দ্রুত হস্তক্ষেপ করেন। এই প্রসঙ্গে অভিনেতা বলেন, “আমি আশা করবো প্রধানমন্ত্রী মোদী যেসব বিদ্বেষীদের টুইটারে ফলো করেন… তাকেই কিছু করতে হবে ওদের চুপ করানোর জন্য, কারণ তার কথাতেই কাজ হবে।” নুপুর শর্মা পয়গম্বর হজরত মহম্মদ সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করার সময়ে এও দাবি করেছিলেন যে, শিবলিঙ্গ নিয়ে ক্রমাগত কটুক্তি শুনে শুনেই পয়গম্বর সম্পর্কে ওই বিস্ফোরক মন্তব্য করে বসেছেন তিনি। তার এই দাবি কার্যত এই দিন নস্যাৎ করে দিলেন নাসিরুদ্দিন।

নাসিরুদ্দিন এই প্রসঙ্গে পরিষ্কার বলেন, তিনি অন্তত মনে করতে পারছেন না কোন মুসলিম ধর্মালম্বী ব্যক্তি হিন্দু দেব-দেবী সম্পর্কে এমন মন্তব্য করেছেন কিনা। অভিনেতা এই প্রসঙ্গে আরো বলেন যে, নুপূর শর্মা বিজেপির জাতীয় মুখপাত্র। তাই উপরমহলের সম্মতি ছাড়া তিনি কিছু বলেছেন এমনটা হতেই পারে না। তবে নুপূর শর্মা যাই বলুন না কেন, ভারতে যে তিনি নিরাপদ আছেন তাও তিনি উল্লেখ করেন। নাসিরুদ্দিনের কথায়,“আমি নিজেকে সংখ্যালঘু মনে করিনা। এই দেশে আমি খারাপ নেই।”

উল্লেখ্য,পয়গম্বর সম্পর্কে অবমাননাকর মন্তব্য করবার পর নুপূরকে ক্রমাগত খুন ও ধর্ষণের হুমকি দিতে থাকেন ক্ষিপ্ত মানুষজন। এই বিষয়টির তীব্র প্রতিবাদ করেন অভিনেতা। নুপূরের সাথে এই ধরনের আচরণ তিনি কখনই সমর্থন করেন না।এই প্রসঙ্গে নাসিরুদ্দিন বলেন,“এই কারণেই পাকিস্তান আর আফগানিস্তান এই পরিস্থিতিতে রয়েছে। ওই দেশগুলোর মত হওয়ার দরকার নেই আমাদের। ‌ কিন্তু আমরা সেটাই করছি। গো হত্যা করার সন্দেহে মানুষকে নির্বিচারে হত্যা করা হচ্ছে। এগুলো বর্বর মুসলিমপ্রধান দেশ গুলোতে হয়, ভারতে নয়।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য বলিউডের ব্যতিক্রমী অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত নুপূরের পাশে দাঁড়িয়েছেন। নুপূরের বক্তব্যকে সমর্থন করে তিনি বলেছেন, “নুপুরের ও নিজস্ব মতামত জানানোর অধিকার রয়েছে। ওকে সব ধরনের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। যখন হিন্দু দেবদেবীর অপমানিত হয়, যা প্রায় প্রতিদিনই হয়, তখন আমরা আদালতে যাই। দয়া করে সেটাই করুন নিজেরা ডন হয়ে ওঠার কোন দরকার নেই।” এর পাশাপাশি অভিনেত্রী আরো বলেন যে, “এটা আফগানিস্থান নয়। আমাদের কাছে সম্পূর্ণ সক্রিয় এক সরকার রয়েছে যা প্রজাতন্ত্রের মাধ্যমে নির্বাচিত হয়। যারা বারবার এটা ভুলে যান তাদের মনে করিয়ে দিলাম।”

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।