টলিউড

সৌমিতৃষা আর গৌরবের পর এবার ভুয়ো বিজ্ঞাপন নিয়ে ক্ষোভ উগরে দিলেন স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়! তাঁর ছবি নিয়ে বেআইনিভাবে বিজ্ঞাপন দেওয়া হচ্ছে বলে দাবি অভিনেত্রীর

আর মাত্র হাতে গোনা কয়েকটা দিন। তারপরেই মহালয়া। বড় বড় পূজো অনুষ্ঠান গুলি ইতিমধ্যেই তাদের কাজ সেরে ফেলেছেন। কিছুদিন আগেও শোনা গিয়েছিল পুজোর উদ্বোধন করছেন এবার তারকারা। না না বড় পর্দা তারকা নন ছোট পর্দার জনপ্রিয় তারকারা। আবার তাঁদের শুধুমাত্র ফিতে কাটতে যাওয়ার পারিশ্রমিক ও সামনে এসেছিল কিছুদিন আগেই। কিন্তু এক বিশিষ্ট সংবাদ মাধ্যম দ্বারা প্রকাশিত সেই লিস্ট অর্থাৎ সম্পন্ন তথ্যটাই একেবারে ভুয়ো বলে দাবি করেছেন অভিনেত্রী সৌমিতৃষা কুন্ডু এবং অভিনেতা গৌরব। কিন্তু এরপরেই বড় পর্দার এক জনপ্রিয় তারকা স্বস্তিকা মুখার্জিও সুর চড়ালেন এমনই একটি খবরের বিরুদ্ধে।

একটি বিজ্ঞাপনে অভিনেত্রীর ছবি দিয়ে খুঁটিপূজোয় তারকা আমন্ত্রণের জন্য দেওয়া হয়েছে ফোন নম্বরও। খুঁটি পূজার উদ্বোধন হবে তারকার হাত ধরে এমনটাই মূল উদ্দেশ্য সেই বিজ্ঞাপনের। সেখানে সবুজ রঙের শাড়িতে বঙ্গ ললনা স্বস্তিকার ছবি একেবারে মধ্যমণি। আর সেখানে যোগাযোগের জন্য দেওয়া আছে দুটি নম্বরও। কিন্তু এই বিজ্ঞাপনের পোস্টার দেখামাত্রই বিরক্তি প্রকাশ করেন অভিনেত্রী নিজেই।

সোশ্যাল মিডিয়ায় সে বিজ্ঞাপনের ছবি পোস্ট করে অভিনেত্রী ক্যাপশনে লেখেন, “এটাই মনে হচ্ছে নিয়ম হয়ে গেছে, আর্টিস্ট দের সঙ্গে কোনোরকম কথা না বলে, তাদের মতামত না নিয়ে, লিখিত কোনো পারমিশন ছাড়াই তাদের ছবি ব্যবহার করে প্রচার করা। আমি কারুর সঙ্গে চুক্তি তে নেই, এক্সক্লুসিভলি তো কোন ভাবেই নই।” ঠিক তার সাথেই “যোগাযোগ করার হলে এই নম্বরে করবেন” বলে একটি নম্বর দিয়েছেন অভিনেত্রী নিজেই।

কোন অনুমতি ছাড়াই বিজ্ঞাপনের পোস্টারে অভিনেত্রীর ছবি দেওয়ায় খুবই বিরক্ত অভিনেত্রী। এ বিষয়ে আরো স্পষ্টভাবে জানার জন্য এক সংবাদ মাধ্যমের তরফ থেকে বিজ্ঞাপনের পোস্টারে দেওয়া নাম্বারে ফোন করা হয়। আর সেই ফোন নাম্বার জানা যায় গৌতম ভৌমিক বলে এক ব্যক্তির। সেই ফোন কলেই গৌতম বাবু জানান ভুলটা তাঁর দিক থেকেই হয়েছে। আসলে তিনি আগে অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখার্জির ম্যানেজার ছিলেন। অভিনেত্রীর পারমিশন না নিয়ে অভিনেত্রীর ছবি পোস্টারে দেওয়াটা সত্যিই অন্যায় হয়েছে তাঁর।

এছাড়াও গৌতম ভৌমিক আরো জানান যে অভিনেত্রীকে অনুষ্ঠানের জন্য ডাকা হলে সেই ব্যক্তিকে অভিনেত্রীর বর্তমান ম্যানেজারের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দেবেন বলেই জানিয়েছেন গৌতম। এছাড়াও গৌতম ভৌমিক আরো জানিয়েছেন যে সত্যিই স্বস্তিকার ছবি বিজ্ঞাপনের পোস্টারে দেওয়ার আগে অভিনেত্রীর ম্যানেজার বা অভিনেত্রীর সাথে যোগাযোগ করে নেওয়া তাঁর উচিত ছিল। নিজের ভুল স্বীকার করেই অভিনেত্রীর কাছে অভিনেত্রীর সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলের সেই পোস্টটি তুলে দেওয়ার জন্য আবেদন করবেন বলে জানিয়েছেন স্বস্তিকার প্রাক্তন ম্যানেজার গৌতম ভৌমিক।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।