বিদেশ

‘কেন ইউক্রেনের উপর হামলা চালিয়ে যুদ্ধ-ঘোষনা করলো রাশিয়া’! জানুন এই গুরুত্বপূর্ণ কারণগুলি

বেশ কিছুদিন ধরেই রাশিয়া এবং ইউক্রেনের সম্পর্ক শীতল থেকে শীতলতম হচ্ছিল। পাশাপাশি আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা যুদ্ধের আশঙ্কাকেও উড়িয়ে দিচ্ছিলেন না। তবে এবার সমস্ত আশঙ্কা এবং সম্ভাবনা সত্যি করে ইউক্রেনের উপর হামলা চালাতে দেখা গেল রাশিয়াকে। পাশাপাশি ইউক্রেনে মিলিটারি কার্যকলাপের নির্দেশ দিতে দেখা গিয়েছে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে।

জানা গেছে বেশ কিছুদিন ধরেই রাশিয়া আশ্রিত বিদ্রোহীরা হিংসাত্মক কার্যকলাপ চালাচ্ছিল ইউক্রেনে। ফলে তাদের সঙ্গে নিয়মিত বিরোধ বাধছিল ইউক্রেনের পুলিশ এবং সৈন্যদের। এরপর ২০১৪ সালে ইউক্রেনের সাধারণ নাগরিকরা ভোটাধিকার প্রয়োগ করে নিজেদের প্রশাসন থেকে সরিয়ে দেয় রাশিয়ার এক উচ্চপদস্থ কর্তাকে, যা মোটেও ভালভাবে নেয়নি রাশিয়া।

তবে রাশিয়ার এই কার্যকলাপ থামানোর চেষ্টা করতে দেখা গিয়েছিল আমেরিকার জো বিডেনের সরকারকে। তবে রাশিয়া পূর্ব ইউক্রেন দখল করার উদ্দেশ্যে মদত দিতে শুরু করে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের। এরপর ইউক্রেন ন্যাটোতে যোগদান করার চেষ্টা করলে ক্ষুব্ধ হতে দেখা যায় রাশিয়াকে। তবে এখনো পর্যন্ত ন্যাটোতে যোগদানের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ইউক্রেন। জানা গেছে রাশিয়ার সঙ্গে বিরোধের ফলে এখনো পর্যন্ত মারা গিয়েছেন ১৪ হাজার মানুষ।

তবে আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা জানাচ্ছেন পূর্ব ইউক্রেন দখল করতে চাওয়ার পিছনে রাশিয়ার একটি গুরুতর কারণ রয়েছে। যদি তারা পূর্ব ইউক্রেন দখল করতে পারে তাহলে শত্রুপক্ষের কাছে রাশিয়া আক্রমণ করা অনেক বেশি কঠিন হয়ে যাবে।

পাশাপাশি জানা গিয়েছে গোটা বিষয়টি নিয়ে আমেরিকার কোন কথাই শুনতে রাজি নয় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। বরং ইতিমধ্যেই ইউক্রেনের ডোনেৎস্ক ও লুহান্সককে স্বাধীন রাষ্ট্রের মর্যাদা দিয়েছেন তিনি।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।