কলকাতা

‘গ্রাজুয়েশন,মাস্টার্স করে আর চাকরি পাওয়া যায় না! ১০ জনের মধ্যে ৫ জন‌ চাকরি চান!’ বিস্ফোরক মন্তব্য করে বসলেন কৃষি মন্ত্রী শোভন দেব!

রাজ্যে শিল্প-সংস্কৃতি ধ্বংস হয়ে গেছে, রাজ্যের মানুষ চাকরির খোঁজে অন্য রাজ্যে যাচ্ছেন- এইভাবে সরকারপক্ষকে লাগাতার আক্রমণ করে গিয়েছেন বিরোধী শিবির। কর্মসংস্থান নিয়ে রাজ্য সরকারকে বারংবার বিধিঁয়ে কথা বলে এসেছেন সিপিএম থেকে শুরু করে বিজেপি। বিরোধীরা যেখানে লাগাতার রাজ্য সরকারকে কর্মসংস্থান নিয়ে কটাক্ষ করেছেন, সেখানে রাজ্য সরকার কিন্তু এই বিষয়ে কখনোই কোন মন্তব্য করেননি। এই রাজ্যে কর্মসংস্থান যে একেবারেই নেই, বেকার যুবক যুবতীদের মধ্যে হতাশা গ্রাস করেছে তা বিরোধীদের মন্তব্যে বারংবার উঠে এলেও সরকারপক্ষ তা কখনোই মানতে চাননি, তারা এগুলোকে বিরোধীদের চক্রান্ত বলেই উড়িয়ে দিয়েছেন। অবশেষে রাজ্যের কৃষিমন্ত্রী রাজ্যের কর্মসংস্থান নিয়ে এই রাজ্যের বেহাল দশার কথা স্বীকার করলেন। শনিবার একটি বেসরকারি অনুষ্ঠানে গিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করে বসেন রাজ্যের কৃষি মন্ত্রী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়। ঠিক কী বলেছেন তিনি?

তিনি সেই অনুষ্ঠানে গিয়ে বলেন, ১০ জনের সঙ্গে সাক্ষাত হলে অন্তত ৫জন চাকরি চান। মাস্টার ডিগ্রী বা গ্র্যাজুয়েশন করে কেউ আজকাল আর চাকরি পান না। তাঁর এই বক্তব্যকে কেন্দ্র করে বিরোধীদের কটাক্ষ, যাক অবশেষে নিজেদের ব্যর্থতা স্বীকার করলেন শোভন বাবু। এইদিন একটি বেসরকারি অনুষ্ঠানে শোভন দেব চট্টোপাধ্যায় কার্যত স্বীকার করেন যে, “এই যে ১২ লক্ষ্য ছেলেমেয়ে (মাধ্যমিক) পরীক্ষা দিয়েছে। এর মধ্যে ৮৬ শতাংশ পাশ করেছে। এরা কিন্তু শিক্ষিত বেকার তৈরি হয়ে গেল। এখন গ্রাজুয়েশন, মাস্টার ডিগ্রী করে আর চাকরি পাওয়া যায় না‌। রোজ আমি যখন সাধারন মানুষের সঙ্গে কথা বলি তখন ১০ জনের মধ্যে অন্তত ৫ জন আমাকে চাকরি দেওয়ার অনুরোধ করেন। কোনো কোনো সংখ্যাটা এর থেকেও বেশি হয়। কী পাশ করলে মানুষ চাকরি পাবেন সেটা জানা দরকার।”

শোভন বাবুর এই বক্তব্য শোনার পর বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা বলেন,“শোভন দেব বাবু সত্যি কথা বলে ফেলেছেন। ক্ষমতায় আসার পর থেকেই তো তৃণমূল কংগ্রেস বলছে শিল্প হবে। কিন্তু কোথায় শিল্প? উল্টে শিল্প কারখানা সব পশ্চিমবঙ্গ ছেড়ে পালিয়েছে। এ রাজ্যে ইনফোসিস এসেছিলো। যাওয়ার সময় তারা বলে গিয়েছে, আর যেখানেই যাই পশ্চিমবঙ্গে নয়। পশ্চিমবঙ্গে কর্মসংস্কৃতি নষ্ট হয়ে গিয়েছে। কেউ ভালো করে পাশ করলেও কাজ কোথায়? কাজ‌‌ই তো নেই।”

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।