টলিউডরাজ্য

কুকুরের পেছনে পেট্রোল দিয়ে দৌড় করাতেন! দিলীপ ঘোষের মন্তব্যে রেগে আগুন শ্রীলেখা ও দেবলীনা!

বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি দিলীপ ঘোষ রাজনীতির আঙিনায় জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব। তবে রাজনৈতিক নানা বক্তব্য, সিদ্ধান্তের পাশাপাশি অনেক সময় তার নানান রকম বেহিসেবি কথাবার্তার জন্য তিনি বিতর্কিত হন। সম্প্রতি যেমন তিনি একটি বিষয় নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তুমুল বিতর্কিত হয়েছেন। আসলে রাজনৈতিক নেতারা অনেক সময় প্রতিপক্ষের সমালোচনা করতে গিয়ে মাত্রা জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন তখনই তারা সমালোচিত হন এইবার তেমনটাই ঘটেছে দিলীপ ঘোষের ক্ষেত্রে।

বিজেপির এই নেতা তৃণমূল নেতাদের সমালোচনা করতে গিয়ে তাদের কুকুরের সাথে তুলনা করেছেন। শুধু তাই নয় তিনি এও বলেছেন যে, কুকুরের পিছনে পেট্রোল দিলে যেমন দৌড়ায়, তৃণমূল নেতাদের সঙ্গেও তেমনটাই করা উচিত! সর্বভারতীয় সহ-সভাপতির এই রকম বক্তব্য শুনে রীতিমতো চটে গিয়েছেন পশুপ্রেমীরা। দিলীপ ঘোষের এহেন বক্তব্য শুনে শ্রীলেখা মিত্র, দেবলীনা দত্ত ও তথাগত মুখোপাধ্যায়ের মতো পশু প্রেমীরা রেগে আগুন হয়ে গিয়েছে!

বিতর্কের সূত্রপাত বাঁকুড়ার একটি জনসভা থেকে। সেই জনসভাতে উপস্থিত হয় হঠাৎ বিজেপি নেতা বলে বসেন,ছোটবেলায় কুকুরের পেছনে পেট্রোল দিয়ে দিতেন তারা, কুকুর দৌড়াতো। তৃণমূল নেতাদের পিছনেও তেমন করে পেট্রোল দিলে তারাও দৌড়াবেন। শ্রীলেখা মিত্র এই কথা শুনে বেজায় চটেছেন। পশুপ্রেমী হিসেবে তার খ্যাতির কথা সকলেই জানেন। তিনি একাধিক সারমেয় পোষ্য হিসেবে রাখার পাশাপাশি রাস্তার পথ কুকুরদেরকেও খাবার ওষুধ দিয়ে যত্ন করেন। এহেন পশুপ্রেমী ব্যক্তিত্ব ভরা মঞ্চে পশুদের বিরুদ্ধে এরকম কথায় চটবেন তাই স্বাভাবিক।

শ্রীলেখা মিত্র এই কথা শোনার পর সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, একজন নেতা স্থানীয় লোক এমন মন্তব্য করে নিজের খুনি মানসিকতার পরিচয় দিচ্ছেন। একটা অবলা প্রাণীর পেছনে আগুন দিয়ে দেওয়ার মতো কাজও বড় মুখ করে বলছেন দিলীপ ঘোষ। একই সাথে তৃণমূল নেতাদেরকে যেভাবে কুকুরের সাথে তুলনা করেছেন তাতে করে নিজের সাম্রাজ্যবাদী মানসিকতার পরিচয় দিয়েছেন তিনি। এখানেই থামেননি শ্রীলেখা তিনি আরো প্রশ্ন জুড়েছেন। অভিনেত্রীর প্রশ্ন,“নিজের লেজের আগুন দিয়ে লঙ্কা জালানো হনুমানকে দেখেই কি অনুপ্রাণিত হয়েছেন দিলীপ ঘোষ?”

অভিনেত্রী দেবলীনা দত্ত ও প্রতিবাদ করে বলেছেন, ছোটবেলায় একটা অবলা প্রাণীকে কষ্ট দিয়ে আনন্দ পেতেন আর সেটা আবার নিজের মুখে স্বীকার‌ও করছেন! এমন বিকৃত মানসিকতার মানুষের কাছ থেকে আর কেমন ভাষাই বা আশা করবো।দিলীপ ঘোষের বক্তব্য সম্পর্কে নিজের প্রতিবাদ জানিয়েছেন অভিনেতা তথাগত মুখোপাধ্যায়‌ও। অভিনেতা তথাগত মুখোপাধ্যায়ের কথায়, যিনি নিজের মুখে এমন নিষ্ঠুর কাজের কথা স্বীকার করতে পারেন তাকে কোন দলের মুখ হিসেবে রাখা মানে সেই দলেরই লজ্জা! যিনি নিরীহ প্রাণীর সঙ্গে এমন টা করতে পারেন তাঁর মানুষ খুন করতেও বাঁধবে না।

পশুপ্রেমীদের এরকম বক্তব্য শোনার পর থেকে বিজেপির অন্দরেও কথা শুরু হয়েছে দিলীপ বাবুর বক্তব্যকে ঘিরে তবে এই ঘটনায় এখনও অবধি দিলীপবাবু মুখ খোলেননি।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।